advertisement
আপনি পড়ছেন

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের আগে টেস্ট দলের অধিনায়কের পদ ছেড়ে দেন মুমিনুল হক। ক্যারিবিয়ানে যাওয়ার কয়েকদিন আগে সাকিব আল হাসানকে নতুন অধিনায়ক ঘোষণা করে বিসিবি। যদিও গত কয়েক বছরে এ ফরম্যাটে অনিয়মিত ছিলেন সাকিব। তবে এটাও ঠিক, বাঁহাতি এ অলরাউন্ডারের নেতৃত্বে লাল বলের ক্রিকেটে নতুন শুরুর আশা করেছিলেন অনেকেই।

mashrafe shakib 1মাশরাফি: সাকিব অধিনায়ক হলেও রাতারাতি কিছু সম্ভব নয়

কিন্তু অধিনায়কত্বের নতুন যাত্রায় বলার মতো কিছু পাননি সাকিব। দুই ম্যাচের সিরিজে উইন্ডিজের কাছে ২-০ তে হেরেছে বাংলাদেশ দল। অ্যান্টিগায় ৭ উইকেটে ও সেন্ট লুসিয়ায় ১০ উইকেটে হেরেছে সাকিব বাহিনী।

টানা দুই ম্যাচ হারলেও অধিনায়ক সাকিবের প্রতি আস্থা রাখছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। রাতারাতি কোনো পরিবর্তন সম্ভব নয়, ‘প্রথমত টেস্ট কখনোই ভালো ছিল না। আমরা মাঝে হোমে কিছু ম্যাচ জিতেছিলাম, একটা উন্নতির দিকে যাচ্ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে আবার নিচের দিকে। টেস্টে আমরা কখনোই ধারাবাহিক ছিলাম না। টেস্ট ক্রিকেটে ইতিবাচক ব্যাপার হলে সাকিব বেশ অভিজ্ঞ ক্রিকেটার।’

অধিনায়ক সাকিবকে আরও সময় দেওয়ার পক্ষে মাশরাফি, ‘ওকে সময় দিতে হবে। আমার বিশ্বাস সময় দিলে কাটিয়ে উঠতে পারব। কিছুটা সময় লাগবে। সাকিব যে অধিনায়ক হয়েছে এটা আমি মনে করি আমাদের জন্য আশীর্বাদ। এ কারণে মনে করি টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার ও পারফরমারের হাতে অধিনায়কত্ব থাকা উচিত এবং সেটা আছে।’

সাকিব অধিনায়ক বলেই সব ম্যাচ জিতিয়ে দেবেন, বিষয়টা এমন নয়। দলের বাকি সবাইকেও পারফর্ম করতে হবে, ‘সাকিবের হাতে গিয়েছে মানে জিতে যাব  এটা কোনো ফ্লক না। আর ১০ জনকেও পারফর্ম করতে হবে। সে জিনিসটাকে গুছিয়ে নিয়ে যখন সামনে অগ্রসর হবে তখন দেখবেন পরিবর্তন এসেছে।’