advertisement
আপনি পড়ছেন

ক্লাব ফুটবলের ব্যস্ততা থেকে সপ্তাহ খানেকের ছুটি। তবে ফুটবলাররা যে বিশ্রাম পাচ্ছেন সেটা ভাবার সুযোগ নেই। জাতীয় দলের মিশন যে শুরু হয়ে যাচ্ছে এই সময়ে। আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ আর বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচ খেলতে জাতীয় দলের জার্সিতে ঝাপিয়ে পড়তে হচ্ছে ফুটবলারদের। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের বাধা ডিঙ্গাতে বাংলাদেশ সময় আগামীকাল ভোরে মাঠে নামবে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা আর নেইমারের ব্রাজিল। বাছাই পর্বে ব্রাজিল বর্তমানে সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে। কিন্তু লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনার সমীকরণটা বেশ কঠিন। ‘অগ্নিপরীক্ষা’ দিতে চিলির মুখোমুখি হচ্ছে আর্জেন্টিনা। বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৫টায় মাঠে নামবেন মেসি-ডি মারিয়া-আগুয়েরোরা।

messi argentina

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের চারটি দল সরাসরি বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ পায়। কিন্তু আগামী রাশিয়া বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বতর্মানে পয়েন্ট টেবিলের পাঁচ নম্বরে আর্জেন্টিনা। ১২ ম্যাচ শেষে পাঁচ নম্বরে থাকা আর্জেন্টিনার পয়েন্ট মাত্র ১৯। ফলে বাকি প্রতিটি ম্যাচেই জয় চাই মেসিদের। ভোরে চিলির বিপক্ষে হারলে ছয় নম্বরে থাকা কলম্বিয়া তাদের উপরে উঠে যাওয়ার কথা। ফলে হারটা বড় ধাক্কাই হবে আর্জেন্টিনার জন্য।

তবে টানা চার ম্যাচ জয়হীন থাকার পর সর্বশেষ ম্যাচ জেতা আর্জেন্টিনা অবশ্য বেশ ছন্দেই আছে। তাছাড়া ‘প্রাণভোমড়া’ লিওনলে মেসির আছেন স্বপ্নের ফর্মে। চোটের সঙ্গে লড়াই করতে থেকে গত মৌসুমে বার্সেলোনর হয়ে প্রত্যাশা মতো গোল করতে না পারলেও এবার গোলের বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন।

চলতি মৌসুমে ইতোমধ্যেই চল্লিশের বেশি গোল করে ফেলেছেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। আর্জেন্টিনার সর্বশেষ ম্যাচে অনেকটা একাই জিতিয়েছিলেন মেসি। কাল ভোরেও নিঃস্বন্দেহে সেই ঘটনার পুণরাবৃত্তি করতে চাইবেন। কিন্তু কাজটা সহজ হওয়ার কথা নয়। কারণ প্রতিপক্ষের নাম যে চিলি।

অল্প সময়ের মধ্যে আর্জেন্টিনাকে যে তিনটি বড় শিরোপা হাতছাড়া হওয়ার যন্ত্রণায় পুড়তে হলো তার বড় কারণ তো চিলিই। পরপর দুই কোপা আমেরিকার ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে হারিয়েছে চিলি। যে যন্ত্রণা হয়তো কখনোই ভুলতে পারবেন না আর্জেন্টিনা। তবে ব্যাপারটা মেসির দলের জন্য অনুপ্রেরণাও। একটা প্রতিশোধ নেওয়া আর কি।

চিলিকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে দিলেও পরপর দুই কোপা শিরোপা হাতছাড়া হওয়ার ক্ষত শুকানোর কথা নয়। কিন্তু হালকা প্রলেপ তো পড়বে! প্রলেপ দিতে পারলে পয়েন্ট টেবিলের নিজেদের অবস্থানটাও একটু উজ্জল হবে। বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার সম্ভবনা আর একটু উজ্জ্বল হবে। পারবেন তো মেসিরা! দেখা যাক।