advertisement
আপনি পড়ছেন

আর্জেন্টিনার হয়ে চার ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছেন লিওনেল মেসি, আর্জেন্টিনা সেটা সামলে নিতে পারেনি। মেসিহীন আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ বাছাই পেরোনো নিয়েই সংশয়। মেসি বার্সেলোনার হয়েও এক ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। কিন্তু বার্সা সেটাকে পাত্তাই দিল না। মেসি নেই তো কি হয়েছে, নেইমার আর লুইস সুয়ারেজ আছেন না! কাল গ্রানাডার মাঠে মেসির অভাব বুঝতেই দেননি বার্সার আক্রমনভাগের দুই তারকা। লা লিগার ম্যাচে ৪-১ ব্যবধানের বড় জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে মেসিহীন বার্সেলোনা।

neymar vs granada

মেসি না থাকলেই বার্সার হয়ে বেশি জ্বলে উঠেন নেইমার, এমন ধারণা অনেকের। পরিসংখ্যানও অবশ্য তেমন কিছুই বলছে। কাল গ্রানাডার মাঠেও বেশি উজ্জল দেখা গেল নেইমারকে। মেসির অনুপস্থিতিতে মাঠে বার্সার নেতা হয়ে ছিলেন ব্রাজিলিয়ান তারকা। এক প্রান্ত থেকে বার্সার খেলাটা পরিচলনা করেছেন। বার্সার চারটি গোলেই তার বড় অবদান আছে।

ম্যাচের ২৫ মিনিটেই গ্রানাডার জালে বল জড়িয়ে দিয়েছিলেন ব্রাজিল তারকা। কিন্তু অফসাইডে বাতিল হয়ে যায় সেটা। বার্সাকে এগিয়ে যেতে বেশ অপেক্ষাই করতে হয়েছে। প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে গিয়ে লুইস সুয়ারেজ ১-০ তে এগিয়ে নেন কাতালান ক্লাবটিকে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আবার সমতায় ফিরে আসে গ্রানাডা। তবে সেটা নিয়ে বেশি চিন্তা করতে হয়নি বার্সা সমর্থকদের। ৬৪ মিনিটে পাকো আলকাসারের গোলে ২-১ ব্যবধানের এগিয়ে যায় বার্সা। ৮৩ মিনিটে ইভান রাকিতিচের গোলে ৩-১। দুর্দান্ত নেইমারের গোল উৎযাপন যোগ করা সময়ে। ৯১ মিনিটে বার্সার চার নম্বর গোলটি করেছেন নেইমার।

মিনিট খানেক পর আর একবার গোল উৎযাপন করতে পারতেন। লুইস সুয়ারেজের কাছ থেকে বল পেয়ে পায়ের কারুকাজে গ্রানাডার চার ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে হঠাৎ গোলমুখে শট। চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া কিছুই করার ছিল না গ্রানাডা গোলরক্ষকের। কিন্তু বল গিয়ে লাগল বাঁ পাশের বারে। যাতে নেইমারের দ্বিতীয় গোল উৎযাপন করা হয়নি, বার্সাও ৪-১ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে।

এদিকে, এর কায়েক ঘন্টা আগে মাঠে নেমে রিয়াল মাদ্রিদও দারুণ জয় পেয়েছে। লিগ ম্যাচে করিম বেনজেমা, ইসকো ও নাচোর গোলে ঘরের মাঠে দেপোর্তিভো আলাভেসের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জিতেছে জিনেদিন জিদানের দল।