advertisement
আপনি পড়ছেন

‘এল ক্লাসিকো’র ঝাঁঝ কতটা জিনেদিন জিদানের চেয়ে আর কে ভালো বুঝবে! পাঁচ পাঁচটি বছর রিয়াল মাদ্রিদের জার্সিতে মাঠ মাতিয়েছেন। সেই সময় স্বাভাবিক ভাবেই অনেকবার চিরপ্রতিদন্দ্বী বার্সেলোনার মুখোমুখি হতে হয়েছে। দুই আড়াই বছর ধরে রিয়ালের প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করছেন। ফলে কোচ হিসেবেও ‘এল ক্লাসিকো’র অভিজ্ঞতা হচ্ছে জিদানের। তবে কোচ হিসেবে ‘এল ক্লাসিকো’র স্বাদটা বেশ তেতোই জিদানের কাছে। তার অধীনে বার্সার কাছে রিয়াল যে হেরেই চলছে।

zinedine zidane vs barcelona

গত মৌসুমে লা লিগার দুই ‘এল ক্লাসিকো’র একটিও জিততে পারেনি রিয়াল। ঘরের মাঠে একটিতে হেরেছে, অন্যটি ড্র। সব মিলিয়েই সর্বশেষ ছয় ‘এল ক্লাসিকো’তে রিয়ালের জয় মাত্র একটি! বিপরীতে হার চারটি, অন্যটি ড্র। অন্য সব জায়গায় অনেকটা অপ্রতিরোধ্য জিদানের রিয়াল। কিন্তু চিরশত্রু বার্সেলোনার সামনে এসে কেমন যেন নতজানু অবস্থা।

গতকালও ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপে বার্সার বিপক্ষে ৩-২ গোলে হেরেছে জিদানের রিয়াল। মাদ্রিদের ঐহিত্যবাহি ক্লাবটির সমর্থকদের জন্য বিষয়টা মেনে নেওয়া বেশ কষ্টকরই। তবে জিদান বললেন ‘নো প্রবলেম’। বার্সার কাছে এভাবে হেরে যাওয়াতে চিন্তা করছেন না রিয়াল কিংবদন্তি।

জিদান বলেছেন, ‘এই পরাজয়ে আমি চিন্তিত নই। এটা সব সময়ই কষ্টের, আমরা হারতে পছন্দ করি না। কিন্তু এটা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু নয়। আমাদের উন্নতি কর দরকার এবং পরিবর্তন করা দরকার।’

রিয়াল কোচ বলেছেন, ‘প্রাক মৌসুম প্রস্তুতিতে আমরা যে ফল পেয়েছি তেমনটা প্রত্যাশা করিনি। তবে তাকে খুব বড় কোন ক্ষতি হয়নি।’

প্রাক মৌসুম প্রস্তুতিতে তিন ম্যাচ খেলে একটিতেও জিততে পারেনি রিয়াল মাদ্রিদ। প্রথম ম্যাচে লিভারপুলের বিপক্ষে টাইব্রেকারে হেরে দ্বিতীয় ম্যাচে রীতিমতো লজ্জাই পেতে হয়েছে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে। সিটিজেনদের কাছে ৪-১ গোলে হারের পর কাল হারতে হলো চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার কাছে। এমন অবস্থা নিয়ে সপ্তাহ খানেক পর আবারো বার্সেলোনার বিপক্ষে মুখোমুখি হতে হচ্ছে রিয়ালকে, উয়েফা সুপার কাপে।