advertisement
আপনি পড়ছেন

২২২ মিলিয়ন ইউরো খরচে বার্সেলোনা থেকে নেইমারকে ভাগিয়ে নিয়েছে পিএসজি। অনেকেই বিষয়টাকে ‘বাড়াবাড়ি’ই মনে করছেন। কিন্তু অঙ্কটা যে বাড়াবাড়ি নয় তার প্রমাণ দিতে শুরু করেছেন নেইমার। ক’দিন নেইমারের জার্সি বিক্রি করে পিএসজির ব্যাংক অ্যাকাউন্ট অনেকটা ফুলেছে। এবার মাঠে আসল কাজ করতে নেমেও শুরুতে লেটার মার্কে পাস নেইমার। আজ অভিষেক ম্যাচে পিএসজিকে অনেকটা একাই জিতিয়েছেন ব্রাজিল সুপারস্টার।

neymar vs guingamp

গুইনয়াম্পের বিপক্ষে আজ লিগের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেছিল পিএসজি। অনেক ঝাক্কি ঝামেলা সেরে পিএসজির জার্সিতে অভিষেক হয়েছে নেইমারেরও। ব্রাজিল সুপারস্টারের অভিষেক ম্যাচে গুইনয়াম্পের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জিতেছে পিএসজি। এই তিন গোলের একটি করেছেন নেইমার, অপরটি করিয়েছেন। অন্য গোলটি আত্মঘাতী।

নতুন ক্লাবে মানিয়ে নেওয়ার একটা বিষয় থাকে। তাছাড়া কয়েকদিন কম ঝামেলা পোহাতে হলো না নেইমারকে। সব কিছুকে এক পাশে রেখে এমন পারফরম্যান্স! দুপায়ের জাদুতে মোহিত করে রাখলেন অভিষেককে। পিএসজির কাতারি মালিকরা হয়তো ‘গোফে তা’ দিচ্ছেন আর ভাবছেন ‘সোনার ডিম পাড়া হাঁসই কিনেছি’!

নেইমারকে শুরুর একাদশেই রেখেছিলেন পিএসজি কোচ। নেইমারের নেতৃত্বে গুইনয়াম্পের বিপক্ষে শুরু থেকেই দাপুটে খেলেছে পিএসজি। আক্রমণভাগে গুইনয়াম্পের ডিফেন্ডারদের নাভিশ্বাস তুলে ছেড়েছিলেন নেইমার। প্রথমার্ধে বেশ কিছু গোলের সুযোগও তৈরি করেছিলেন নেইমার। কিন্তু কাজে লাগেনি একটিও।

প্রথম গোল পেতে পিএসজিকে অপেক্ষা করতে হয়েছে ম্যাচের ৫২ মিনিট পর্যন্ত। এই এগিয়ে যাওয়াতে প্রতিপক্ষের অবদান। ৫২ মিনিটে আত্মঘাতি গোল করে পিএসজিকে ১-০ তে এগিয়ে দেন জর্ডান ইকোকো। ৬২ মিনিটে নেইমার জাদুতে ব্যবধান ২-০। গুইনয়াম্প ডিফেন্ডারদের কড়া পাহাড়ার মধ্যে অসাধারণ এক পাস নেইমারের। যেটা সহজেই খুঁজে নেয় এডিনসন কাভানিকে। সহজ জায়গায় বল পেয়ে এরপর গোল করতে ভুল করেননি কাভানি।

৮২ মিনিটে গিয়ে নেইমারের নিজেরই গোলদাতা হওয়ার উল্লাস। কাভানির পাস থেকে পিএসজির হয়ে অভিষেক গোলটি তুলে নেন বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার। যাতে শেষ পর্যন্ত ৩-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে পিএসজি।