advertisement
আপনি পড়ছেন

দল বদলের সব রেকর্ড গুঁড়িয়ে বার্সেলোনা ছেড়ে প্যারিস সেন্ট জার্মেইতে (পিএসজি) এসেছিলেন নেইমার। প্যারিস শহরটা ঠিকঠাক ঘুরে দেখাও হয়নি। এরই মধ্যে ক্লাবের সতীর্থ ও কোচের সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার। তার দল বদল নিয়ে ওঠে নতুন গুঞ্জন।

neymar and marcelo in a single pic

গুঞ্জনের পালে হাওয়া দিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার পাওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠায়। একটা শর্ত দিয়ে পিএসজিও রাজি হয়েছে প্রাণভোমরাকে ছাড়তে। নেইমারও নাকি মনেপ্রাণে চাইছেন স্প্যানিশ ফুটবলে ফিরতে।

মার্সেলোর বিশ্বাস-নেইমার একদিন ঠিকই স্পেনে ফিরবেন, খেলবেন রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে। মূলত উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের রূপালি ট্রফিটা জয়ের জন্যই ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে নেইমারকে উড়িয়ে এনেছে পিএসজি। এবার ইউরোপ সেরা হতে পারলেই স্বপ্নপূরণ হবে ফ্রেঞ্চ ক্লাবটির। এ যাত্রায় পিএসজির সামনে বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে সেই রিয়াল মাদিদ্র-ই। বুধবার নকআউট পর্বের প্রথম লেগের ম্যাচ খেলতে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে আসবেন নেইমার অ্যান্ড কোং।

কিন্তু শত্রুবেশে বন্ধুর আগমন হলেও নেইমারকে ক্লাবেও সতীর্থ হিসেবে চান মার্সেলো। ব্রাজিলিয়ান লেফট-ব্যাকের বিশ্বাস একদিন রিয়াল মাদ্রিদের জার্সিতে খেলবেন নেইমার। মার্সেলো বলেছেন, ‘নেইমার কী রিয়াল মাদ্রিদের জন্য সঠিক খেলোয়াড়? হ্যাঁ, নিশ্চিত থাকতে পারেন। এটা দারুণ হবে ও যদি এখানে আসে। আমার বিশ্বাস একদিন রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে খেলবে নেইমার।’

সত্যিই যদি ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার রিয়ালে আসেন সেক্ষেত্রে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে দেখা যেতে পারে নতুন ঠিকানায়। পর্তুগিজ উইঙ্গারের পরবর্তী সম্ভাব্য ক্লাব হতে পারে পিএসজি কিবা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তাছাড়া এই মৌসুসে সময়টা খুব একটা ভালো কাটছে না রোনালদোর।

বার্নাব্যু চত্ত্বরে নাকি রোনালদোর দম বন্ধ হয়ে আসছে এমন খবরও চাউর হয়েছে স্প্যানিশ গণমাধ্যমে। সে যাই হোক রিয়ালের রক্ষণপ্রহরী মার্সেলো শোনালেন আশার কথা, ‘আমার মনে হয় এগুলো সত্যি নয়। রোনালদো যদি অখুশি থাকতো তাহলে তো আর এখানে থাকতো না। দলের সহায়তায় সে সবকিছুই করছে। রিয়াল মাদ্রিদে তার পজিশনটাও খুব শক্তিশালী। আমার মনে হয় না এখানে তিনি অসুখে আছে।’