advertisement
আপনি পড়ছেন

বিশ্বের সবচেয়ে পরোপকারী ক্রীড়া ব্যক্তিত্বের তালিকা তৈরি করতে গেলে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর নামটা ওপরের দিকেই থাকবে। দাতব্য কাজে দান করে প্রায়শই মহত্বের পরিচয় দিয়ে আসছেন পর্তুগিজ উইঙ্গার। শিশুদের বিষয়ে তো বরাবরই কাঁদে বর্ষসেরা ফুটবলারের মন। যেমনটি কাঁদছে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া প্রায় সাড়ে ৬ লাখ রোহিঙ্গা শিশুর জন্য।

ronaldo speaks about rohinga children

বৃহস্পতিবার চার সন্তানের সঙ্গে নিজের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করেছেন রোনালদো। এর সঙ্গে কক্সবাজারের উখিয়ায় স্বাস্থ্য ক্যাম্পে আসা রোহিঙ্গা শিশুদের একটি ছবিও নিজের ভেরিফাইড পেজে সাঁটিয়ে দেন রিয়াল মাদ্রিদ প্রাণভোমরা। রোহিঙ্গা শিশু এবং নিজের সন্তানদের মধ্যে যে কোনো পার্থক্য নেই রোনালদো বোধহয় সেটাই জানিয়ে দিলেন গোটা বিশ্বকে।

দুটো ছবিই সাদা-কালো। তবে রোহিঙ্গা শিশু ও তাদের পরিবারের ছবিটি নাড়িয়ে দেওয়ার মতো। ছবিতে দেখা যায় আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা ‘সেভ দ্য চিলড্রেন’ এর স্বাস্থ্য ক্যাম্পে চিকিৎসা নিতে বাবা-মায়ের কোলে চড়ে এসেছেন শিশুরা। ছবি দুটো পোস্ট করে ক্যাপশনে রোনালদো লিখেছেন, ‘একটাই পৃথিবী। যেখানে আমরা নিজেদের সন্তানদের ভালোবাসি। অনুগ্রহ করে সাহায্য করুন।’ ছবির সঙ্গে ‘সেভ দ্য চিলড্রেন’ এর একটা পেজের লিংকও যুক্ত করেছেন রোনালদো।

অনেক বছর ধরেই মানবতার কল্যাণে কাজ করে আসছেন রোনালদো। ২০১৫ সালে তো বিশ্বের সেরা পরোপকারী ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব নির্বাচিত হয়েছিলেন পর্তুগাল অধিনায়ক। ‘সেভ দ্য চিলড্রেনে’র শুভেচ্ছাদ্যূত এবার রোহিঙ্গা ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে এসে দাঁড়ালেন; বিশ্ববাসীর কাছে চাইলেন সহায়তা। যারা মিয়ানমারের উত্তর রাখাইন প্রদেশের নিষ্ঠুর সেনাদের হাত থেকে বাঁচতে আশ্রয়ের খোঁজে কয়েক মাস ধরে বাংলাদেশে ঠাঁই নিয়েছেন।