advertisement
আপনি পড়ছেন

ইউরোপা লিগের শেষ বত্রিশের প্রথম লেগে প্রত্যাশিত জয় তুলে নিয়েছে ফেভারিট আর্সেনাল, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ও এসি মিলান। শুক্রবার তিন গোলের ব্যবধানে জিতে শেষ ষোলোতে এক পা দিয়ে রেখেছে দল তিনটি। তাদের সহজ জয়ের রাতে সঙ্গী হয়েছে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড।

atletico madrid won in by 4 1 goals

সিগনাল ইদুনা পার্কে শেষ মুহূর্তের গোলে আটালান্টাকে নাটকীয়ভাবে হারিয়েছে ডর্টমুন্ড। স্বাগতিকরা জিতেছে ৩-২ গোলে। তবে হেরে গেছে নাপোলি। ঘরের মাঠে মহারণে জার্মান ক্লাব লাইপজিগের কাছে ৩-১ গোলে আত্মসমর্পণ করেছে নাপোলি। ২১ ও ২২ ফিরতি লেগের ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে।

১৯ বছর পর ইউরোপের শীর্ষস্থানীয় প্রতিযোগিতা চ্যাম্পিয়নস লিগে নেই আর্সেনাল। দুধের স্বাদ তাই ঘোলে মেটাতে হচ্ছে উত্তর লন্ডনের ক্লাবটিকে। ইংলিশ জায়ান্ট দলটি খেলছে ইউরোপা লিগে। এ যাত্রায় ঝড়ের বেগে ছুটছে আর্সেন ওয়েঙ্গারের দল। নকআউট পর্বের প্রথম লেগে পুঁচকে ওস্টারসান্ডের মাঠে গানাররা জিতেছে ৩-০ গোলে। আর্সেনালের হয়ে গোল দুটি করেছেন মনরিয়াল ও মেসুত ওজিল। অন্য গোলটা এসেছে 'উপহারসূচক' আত্মঘাতী থেকে।

arsenal won in europa league

প্রতিপক্ষের মাঠ থেকে একই ব্যবধানের জয় নিয়ে ফিরেছে এসি মিলানও। লুডোগোরেৎস রাজগার্ডের বিপক্ষে অবশ্য প্রথম গোলের জন্য ইতালিয়ান ক্লাবটিকে অপেক্ষা করতে হয়েছে ৪৫ মিনিট পর্যন্ত। এসি মিলানের পক্ষে গোল তিনটি করেছেন যথাক্রমে কাটরনে, রদ্রিগেজ ও বরিনি।

তিন গোলের ব্যবধান রেখে দাপুটে জয় পেয়েছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদও। কোপেনেহেগেনের বিপরীতে ম্যাচের শুরুতে অবশ্য পিছিয়ে ছিল স্প্যানিশ জায়ান্টরাই। এক গোলের জবাবে চার গোল দিয়েছে ডিয়েগো সিমিয়নের দল। অ্যাটলেটিকোর চার গোলের মালিক যথাক্রমে নিগুয়েজ, গ্যামেরিও, গ্রিজম্যান ও ম্যাচিন পেরেজ।

অবশ্য ফেভারিটদের সহজ জয়ের রাতে বেশ কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডকে। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে গোল করে স্বাগতিকদের জয় নিশ্চিত করেছেন বাতসুয়াই। ম্যাচে এটা তার দ্বিতীয় গোল। তবে ঘরের মাঠে ডর্টমুন্ডকে এগিয়ে দিয়েছিলেন আন্দ্রে শুরলে। ইলিচিচের দুর্ভাগ্য বলতেই হয়। ৫১ ও ৫৬ মিনিটে দুই গোল করেও লাইপজিগের হার এড়াতে পারেননি।

ফলাফল

লুডোগোরেৎস ০-৩ এসি মিলান; মার্শেই ৩-০ ব্রাগা; সোসিয়েদাদ ২-২ রেড বুল; ওস্টারসান্ড ০-৩ আর্সেনাল; ডর্টমুন্ড ৩-২ আটালান্টা; স্পার্তাক মস্কো ১-৩ বিলবাও; নিঁস ২-৩ লকোমটিভ মস্কো; নাপোলি ১-৩ লাইপজিগ; সেল্টিক ১-০ জেনিত; স্টু বুখারেস্টি ১-০ লাৎসিও; কোপেনহেগেন ১-৪ অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ; অ্যাথেন্স ১-১ ডায়নামো কিভ; পার্টিজান ১-১ প্লাজেন; লিঁও ৩-১ ভিয়ারিয়াল।