advertisement
আপনি পড়ছেন

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর সেই পেনাল্টি শটটি কি ভালো করে খেয়াল করেছেন? একদিন আগে যে পেনাল্টিতে পিএসজির বিপক্ষে রিয়াল মাদ্রিদকে ম্যাচে সমতায় ফিরিয়েছিলেন সিআর সেভেন। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর লড়াইয়ে প্রথমে ১-০ তে পিছিয়ে পড়েছিল রিয়াল। শেষ পর্যন্ত ৩-১ গোলে জেতা রিয়াল ম্যাচে সমতায় ফিরেছিল রোনালদোর পেনাল্টি গোলে।

ronaldo penalty vs psg

ম্যাচের প্রথমার্ধের শেষ মিনিটের ঘটনা। টনি ক্রুসকে ফেলে দিলে পেনাল্টি পেয়ে যায় রিয়াল। ডান পায়ের জোরাল শটে পেনাল্টিকে গোলে পরিনত করেছিলেন রোনালদো। কিন্তু গোলটা যে কায়দায় হলো সেটা হয়তো চোখ এড়িয়ে গেছে আপনার। ‘বাউন্সিং পেনাল্টি’ নাম দেয়া হচ্ছে রোনালদোর ওই পেনাল্টিকে।

অকল্পনীয় এক বিষয়। রোনালদো যখন শট নিলেন বল শূণ্যে ভেসে ছিল! শূণ্যে হালকা ভেসে উঠা বলে বুলেট গতিতে শট নিয়ে পিএসজি গোলক্ষক আরিওলাকে পরাস্ত করেছেন পর্তুগিজ তারকা। এক্ষেত্রে শট নয়, বলতে হবে ভলি করেছেন রোনালদো। কিন্তু প্রশ্ন হলো কিভাবে এই কাণ্ডটা ঘটল?

শট নেয়ার আগে কোনো ভাবেই বলে স্পর্শ করেননি রোনালদো, তাহলে? কেউ বলছেন অলৌকিক বিষয়। আবার অনেকে বলছেন ডান পায়ে শট নেয়ার আগে বাঁ-পা বলের এতো কম দূরত্বে রেখেছিলেন রোনালদো যে বল তার বেগেই ভূমি থেকে একটু লাফিয়ে উঠেছিল। আর লাফিয়ে ওঠা ওই বলেই বুলেট গতিতে শট নিতে পেরেছেন তিনি। আসলেই কি তাই? এই ধারণা সত্য হলে অনুমান করুণ কতোটা পরিশ্রম ও মেধার মিশ্রণ থাকলে এমনটা করা যায়। রোনালদো বলেই হয়তো রপ্ত করতে পরেছেন।

রোনালদোর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড সতীর্থ রিও ফার্দিনান্দ বলেছেন, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে থাকার সময় নাকি এই অনুশীলন করতেন রোনালদো।

এদিকে, রোনালদোর ওই গোল বাতিলের দাবিও তুলেছেন অনেকে। কারণ নিয়ম অনুযায়ী পেনাল্টি শট নেয়ার সময় বল নির্ধারিত স্থানে না থাকলে পুনরায় শট নিতে হয়। সে হিসেবে রোনালদোর পেনাল্টি গোল বৈধ্য নয় বলা হচ্ছে। তবে তার পেনাল্টি শট নিয়ে বিশ্বজুড়ে এতো আলোচনা সেটাই হয়তো শুধু উপভোগ করছেন সিআর সেভেন।