advertisement
আপনি পড়ছেন

আগামী মৌসুমে নতুন দর্শন নিয়ে হাজির হচ্ছে বায়ার্ন মিউনিখের হোম ভেন্যু অ্যালিয়েঞ্জ এরিনা। নতুন আঙ্গিকে কেমন দেখা যাবে ভেন্যুটি সেটার ছবি বুধবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে প্রকাশ করেছে বাভারিয়ান ক্লাবটি।

allianz arena new look

লাল, সাদা এবং নীল। তিনটি রঙে স্টেডিয়ামটি দেখেছে ফুটবল বিশ্ব। বায়ার্ন মিউনিখের ম্যাচের সময় লাল রঙ, ১৮৬০ মিউনিখ ম্যাচের সময় নীল এবং জার্মানি জাতীয় দলের খেলা হলে স্টেডিয়ামটিকে সাদা রঙে রূপান্তর করা হয়। রঙ পরিবর্তনযোগ্য বিশ্বের প্রথম স্টেডিয়াম হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে ভেন্যুটি।

১৯৭২ সাল থেকে মিউনিখ অলিম্পিক স্টেডিয়াম ছিল বায়ার্ন মিউনিখের হোম ভেন্যু। কিন্তু ২০০৫ সাল থেকে এটাকে দুর্গ হিসেবে ব্যবহার করতে শুরু করে বাভারিয়ান ক্লাবটি। অবশেষে স্টেডিয়ামটিকে আরো আধুনিয়ানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জার্মান ক্লাবটি। মৌসুম শেষের আগেই সমাপ্তি হবে স্টেডিয়ামর সংস্কার কাজের।

নতুন রূপে স্টেডিয়ামের গ্যালারির এক পাশে লাল লঙে লেখা হচ্ছে এফসি বায়ার্ন মিউনিখ। অন্যদিকে লেখা থাকবে ‘মিয়া সান মিয়া’। যার বাংলা অনুবাদ দাঁড়ায়, ‘আমরা কে আমরা’।

বুধবার ভক্তদের এই খবরটা দিয়েছে বাভারিয়ান ক্লাবটি। টুইটারে স্টেডিয়ামের নতুন রূপে ছবি দিয়ে বায়ার্ন লিখেছে, ‘এটা নিয়ে অনেক দিন ধরেই আলোচনা হচ্ছিল। অবশেষে রঙিন হচ্ছে এফসি বায়ার্ন।’

২০০৬ বিশ্বকাপের কয়েকটা ম্যাচের আয়োজন করা হয়েছিল অ্যালিয়েঞ্জ এরিনায়। আন্তর্জাতিক ফুটবল ম্যাচের জন্য ৭০ হাজার পর্যন্ত দর্শক ধারণ করতে সক্ষম ভেন্যুটি। তবে ঘরোয়া ফুটবল ম্যাচে আরো পাঁচ হাজার বেশি দর্শক কোনো খেলা উপভোগ করতে পারেন।