advertisement
আপনি পড়ছেন

২০১৫ সালে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ছেড়ে বার্সেলোনায় এসেছিলেন আর্দা তুরান। কিন্তু ন্যু ক্যাম্পে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগটা পাননি তুর্কি মিডফিল্ডার। ধারে খেলার জন্য তাকে ইস্তাম্বুল বাসাকসিরে পাঠিয়ে দেয় স্প্যানিশ লিগ চ্যাম্পিয়নরা। ২০২০ সাল পর্যন্ত সেখানে থাকার কথা রয়েছে তুরানের।

turan banned for 16 games

স্বদেশি ক্লাবে পুরোপুরি থিতু হতে পারেননি। এরই মধ্যে বিপর্যয় নেমে এলো তুরানের ক্যারিয়ারে। তুর্কিস সুপার লিগে ম্যাচ অফিসিয়ালসকে ধাক্কা দিয়ে কঠিন একটা শাস্তিই পেলেন তিনি। তুরানকে ১৬ ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করেছেন তুর্কি লিগের ফুটবলকর্তারা।

ম্যাচটাতে জয়ের সুবাসই পাচ্ছিল ইস্তাম্বুল। কিন্তু ইনজুরি টাইমের দ্বিতীয়ার্ধের গোলে ম্যাচটায় ১-১ ব্যবধানে ড্র করে সিভাসপর। হতাশার ম্যাচটায় পরিবর্তিত হিসেবে মাঠে নেমেছিলেন তুরান। বেঞ্চ থেকে উঠে আসার পরপরই প্রতিপক্ষ ফুটবলারের বাজে একটা ট্যাকলের শিকার হন তিনি।

কিন্তু ফাউলের বাঁশি বাজাননি রেফারি। তাতেই মেজাজের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন ৩১ বছর বয়সী প্লে মেকার। ছুটে গিয়ে লাইন্সম্যানের ওপর তোপ দাগান তুরান। পরে রেফারিকে ধাক্কা দিয়ে বসেন। তখনই শাস্তি হিসেবে পেয়েছেন সরাসরি লাল কার্ড। কিন্তু পরিণামটা যে তার জন্য ভালো হবে না আশঙ্কাটা তখন থেকেই হচ্ছিল।

অবশেষে সেটাই সত্যি হলো। ১৬ ম্যাচের জন্য মাঠের বাইরে ছিটকে যেতে হলো তুরানকে। কাজেই আগামী মৌসুমের প্রায় অর্ধেকটা সময় মাঠের বাইরে কাটিয়ে দিতে হবে তুর্কি মিডফিল্ডারকে। যেটা রীতিমতো ধাক্কা হয়েই এলো ইস্তাম্বুলের জন্য।

এ বছরের জানুয়ারিতে স্বদেশি ক্লাবে যোগ দিয়েছিলেন তুরান। ইস্তাম্বুলে জার্সিতে ১১টি ম্যাচে দুই গোল করেছেন তিনি। কিন্তু মৌসুমের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দলের উদ্বেগটা বাড়িয়ে দিলেন তুরান। তার দল যে লিগ শিরোপার সুবাস পাচ্ছিল!

লিগের বাকি আছে আর দুই রাউন্ড। ৩২ ম্যাচে ৬৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে গালাতাসারাই। হোঁচটের পর লিগ টেবিলের তিনে নেমে গেছে ইস্তাম্বুল। তাদের পয়েন্ট ৬৬। সমান পয়েন্টে গোলগড়ে এগিয়ে থাকায় দুইয়ে উঠে এসেছে ফেনারব্যাচ।