advertisement
আপনি পড়ছেন

শিরোপা জয় আগেই নিশ্চিত হয়ে গেছে বায়ার্ন মিউনিখের। জার্মান লিগের ট্রফি জয়ের সেই ক্লান্তিটাই বোধহয় পেয়ে বসল বাভারিয়ান ক্লাবটিকে। বুন্দেসলিগায় শেষ রাউন্ডের ম্যাচের ফলটাই বলে দিচ্ছে শনিবার কতটা ছন্নছাড়া ফুটবল খেলেছে বায়ার্ন।

bayern munich lost a match after winning the league

গতকাল লিগ মৌসুমের শেষ ম্যাচে স্টুর্টগার্টের কাছে চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ বিধ্বস্ত হলো ৪-১ গোলে। দুই বছর পর ঘরের মাঠে বাভারিয়ানরা যে এভাবে হারবে সেটা ছিল কল্পনারও বাইরে। বাজে এই হার দিয়েই বায়ার্ন অধ্যায় শেষ হলো প্রধান কোচ ইয়ুপ হেইঙ্কেসের। দুর্ভাগ্য জার্মান কোচের। জয় দিয়ে শিরোপা উৎসব করা হলো না তার।

এনিয়ে লিগে ঘরের মাঠে ৩৭ ম্যাচ পর হারল জার্মান ফুটবলের শাসক দল। তবে সবচেয়ে চমকে দেওয়ার মতো বিষয় হচ্ছে- বায়ার্নের হারের ধরনটা। এদিন যে ৮০ শতাংশ বল নিজেদের দখলে রেখেছিল স্বাগতিকরা! মাত্র ২০ শতাংশ বল নিয়ন্ত্রণে রেখেই বায়ার্নকে বিধ্বস্ত করেছে স্টুটগার্ট।

তবে এমন ছন্দ পতনের রাতেও খুশি ছিল বায়ার্ন। কারণ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর এদিনই শিরোপা তাদের হাতে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। ৩৪ ম্যাচে ৮৪ পয়েন্ট চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তারা। লিগ রানার্সআপ হওয়া শালকে জিরো ফোরের পয়েন্ট ৬৩।

শনিবার রাতে অঘটনের শিকার হয়েছে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডও। এদিন তারা হফেনহেইমের মাঠ থেকে ৩-১ গোলের দুঃস্বপ্নের হার নিয়ে ঘরে ফিরেছে। ডর্টমুন্ডকে উড়িয়ে লিগ টেবিলের তিনে উঠে এলো হফেনহেইম। তাদের জায়গা দিতে গিয়ে চারে নেমে গেছে ডর্টমুন্ড। বিস্ময়কর হচ্ছে- পাঁচে থাকা বায়ার লেভারকুজেনও মৌসুম শেষ করেছে ডর্টমুন্ড-হফেনহেইমের সমান ৫৫ পয়েন্ট নিয়ে।

জার্মান লিগের ভুতুড়ে রাতে অঘটন আছে আরো একটি। লিগের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এদিন আনুষ্ঠানিকভাবে দ্বিতীয় স্তরে নেমে গেছে হামবুর্গ। শেষ ম্যাচে জিতেও অবনমন ঠেকানো হলো না তাদের। লিগের শেষ ম্যাচে ঘরের মাঠে মনচেনগ্লাডব্যাচকে ২-১ গোলে হারিয়েছে হামবুর্গ। তবে ম্যাচ শুরুর আগেই তুলকালাম বাঁধিয়ে দেন হামবুর্গের সমর্থকরা।