আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 23 মিনিট আগে

সাধারণত যে কোনো খেলায় বিশ্বকাপ মানে বড় একটা আসরকে বোঝায়। এতদিন এই ধারার বাইরে ছিল ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ। রীতিমতো হাস্যকর একটা টুর্নামেন্ট। বৈষম্যমূলকও বটে। ইউরোপিয়ান জায়ান্টরা এক ম্যাচ খেলেই উঠে যায় ফাইনালে!

real madrid celebrate club world cup fourth trophy

সেখানে অন্য মহাদেশের দলগুলোকে ফাইনালের জন্য অনেকটা পথ পাড়ি দিতে হয়। আরো অবাক হওয়ার তথ্য হচ্ছে- এই বিশ্বকাপে অংশ নেয় মুষ্ঠিমেয় কয়েকটা ক্লাব। এবার প্রথাগত সেই নিয়ম ভেঙে দিচ্ছে বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফা। ক্লাব বিশ্বকাপে ২৪ দলের অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

কিন্তু শুরু থেকেই বিশ্বকাপের এই নিয়মের বিরোধিতা করে আসছে ইউরোপিয়ান ক্লাবগুলো। ইতোমধ্যে জায়ান্ট দলগুলো জানিয়ে দিয়েছে ২০২১ সালে অনুষ্ঠিতব্য এই টুর্নামেন্ট বয়কট করবে তারা। অথচ অংশ নেওয়া মোট দলের এক তৃতীয়াংশ থাকছে ইউরোপিয়ান মহাদেশেরই।

প্রতিবছরই ক্লাব বিশ্বকাপ হয়ে আসছে। নতুন নিয়ম অনুযায়ী এটাও জাতীয় দলের বিশ্বকাপের মতো চার বছর পরপর অনুষ্ঠিত হবে। ‘বড় বিশ্বকাপে’র ঠিক এক বছর আগে ক্লাব বিশ্বকাপ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফিফা। সেক্ষেত্রে হুমকির মুখে পড়বে ফিফা কনফেডারেশনস কাপ।

বিশ্বকাপের ঠিক বছর আগে সাত মহাদেশের আটটি দল নিয়ে আয়োজন করা হয়ে থাকে এই আসরের। মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের প্রতিযোগিতা নিয়ে আপাতত ভাবছে না ফিফা। বরং ক্লাব বিশ্বকাপের দিকেই তাদের মনোযোগ। ক্লাব বিশ্বকাপের কাঠামো বদলাতে পেরেই খুশি তারা।

কাউন্সিলের বৈঠক শেষে শুক্রবার ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনো গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘এখন সমর্থকরা আসল একটা ক্লাব বিশ্বকাপ দেখতে পারবেন। সত্যিকারের চ্যাম্পিয়ন দলই বিশ্বকাপ জিতবে। আমাদের ধারণা এই প্রতিযোগিতায় সর্বোচ্চ প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। টুর্নামেন্টের কাঠামো বদলাতে পেরে আমরা খুশি।’

ধারণা করা হচ্ছে অংশ নেওয়া ২৪ দলের আটটি ক্লাব আসবে ইউরোপ থেকে। দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশ থেকে টিকিট পাবে ছয়টি ক্লাব। আফ্রিকা মহাদেশের প্রতিনিধি থাকবে তিনটি ক্লাব। এ ছাড়া এশিয়া, উত্তর ও মধ্য আমেরিকা, এবং ওশেনিয়া অঞ্চল থেকে সরাসরি একটি করে দল খেলবে ক্লাব বিশ্বকাপে।

বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া প্রতিটি দলের অন্তত ৫০ মিলিয়ন পাউন্ড আয় হবে। এতকিছুর পরও এই টুর্নামেন্টের বিরোধিতা করছে ইউরোপিয়ান ক্লাব অ্যাসোসিয়েশন (ইসিএ)। এক বিবৃতিতে তারা বলেছে, ‘আমরা এটার বিরোধিতা করছি। ইউরোপের কোনো ক্লাব এর অংশ হবে না।’

এখন দেখার বিষয়- শেষ অবধি ফিফা ইসিএকে রাজি করাতে পারে কিনা।