advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 15 মিনিট আগে

দুঃস্বপ্নের শুরু হয়েছিল রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে। রাশিয়া থেকে ফিরলেও ছন্দে আর সেভাবে ফিরতে পারেনি জার্মানি। এখনো নিজেদের হারিয়ে খুঁজছে জোয়াকিম লোর দল। বুধবার প্রীতি ম্যাচে আবারো হোঁচট খেয়েছে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

a moment of germany serbia friendly match

নিরপেক্ষ ভেন্যু তুরষ্কের মাঠ ভল্কসাগেন এরিনায় জার্মানদের ১-১ গোলে রুখে দিয়েছে সার্বিয়া। কিন্তু জায়ান্ট দলকে রুখে দেওয়ার আনন্দ কিছুটা হলেও মাটি হয়ে গেছে সার্বিয়ানদের। কারণ ম্যাচটা যে দশজনের দল নিয়ে শেষ করতে হয়েছে তাদের!

সাবিয়ার বিপক্ষে তারণ্যনির্ভর একাদশ নামিয়ে দেন জার্মানি কোচ লো। একাদশে তিনি রাখেননি টমাস মুলার, ম্যাট হ্যামেলস, জেরমি বোয়াটেংয়ের মতো অভিজ্ঞ ফুটবলারদের। এমনকি মধ্য মাঠের প্রাণ টনি ক্রুসেরও জায়গা হয়নি একাদশে। তার ঠাঁই হলো রিজার্ভ বেঞ্চে!

তারকাদের ছাড়া প্রথমার্ধে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি ‘নতুন’ জার্মানি। ছন্নছাড়া ফুটবল খেলে ‘অচেনা’ জার্মানি। ১২ মিনিটে গোলও হজম করে বসে সাবেক চ্যাম্পিয়নরা। কর্নার থেকে উড়ে আসা বল বিপদমুক্ত করতে পারেননি ডিফেন্ডাররা। ফাঁকায় দাঁড়িয়ে ইয়োভিচ হেডে বল জড়ান জার্মানির দলে (১-০)।

সমতায় ফেরার কয়েকটা সুযোগ পেয়েছিল জার্মানি। কিন্তু প্রথমার্ধে তাদের সব চেষ্টা নিষ্ফল করে দেন সাবিয়ান গোলরক্ষক মার্কো দিমিত্রোভিচ। এদিন গোলপোস্টের নিচে রীতিমতো অতিমানব হয়ে উঠেছিলেন তিনি। হতাশ করেছিলেন রিউস অ্যান্ড কোংকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দিমিত্রোভিচ অক্ষত রাখতে পারেননি গোলপোস্ট।

সবশেষ ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছিল জার্মানি। কাল আগের ম্যাচের থেকে একাদশে ছয়টি পরিবর্তন আনেন কোচ লো। সার্বিয়ানদের বিপক্ষে বিরতির পর আরো তিনটি বদল করলেন তিনি। তাতেই ভাগ্য ফিরে চেয়েছে জার্মানির দিকে। ৬৯ মিনিটে সমতায় ফেরে তারা।

রিউসের কাছ থেকে বল পেয়ে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন লেয়ন গোরেৎস্ক (১-১)। বায়ার্ন মিউনিখ স্ট্রাইকারের গোলে সমতায় ফিরলেও ম্যাচটা জিততে পারেনি জার্মানি। বাকি সময় রক্ষণ আঁটসাঁট করে ফেলে সার্বিয়া। গোল ঠেকাতে দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে লিরয় সানেকে ভয়ঙ্কর ফাউল করতেও দ্বিধাবোধ করেননি মিলান পাভকোভ। অবধারিতভাবেই সরাসরি লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন সার্বিয়ান স্ট্রাইকার।

sheikh mujib 2020