advertisement
আপনি দেখছেন

টটেনহামের ডাগ আউটে দারুণ অভিষেকই হলো হোসে মরিনহোর। কিন্তু রবি রাতটা ভালো কাটেনি পর্তুগিজ ক্লাবের সাবেক কোচের।  ইতিহাদ স্টেডিয়ামের মহারণে হেরে গেছে পশ্চিম লন্ডনের ক্লাব চেলসি। পশ্চিম লন্ডনের ক্লাবটিকে ডেকে এনে ২-১ গোলে হারিয়ে দিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি।

kevin de bruyne scored

ম্যাচের ২১ মিনিটে এনগোলো কান্তের গোলে লিড নিয়েও জিততে পারল না চেলসি। বিরতির আগেই কেভিন ডি ব্রুইনে ও রিয়াদ মাহরেজের গোলের সুবাদে দারুণ জয় তুলে নেয় সিটিজেনরা। জয় পেয়েছে সিটির লিগ প্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুলও। ক্রিস্টাল প্যালেসের মাঠে অল রেডদের জয়টা ২-১ গোলের।

ম্যাচের তিনটি গোলই হয়েছে বিরতির পর। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে প্যালেসের জাল কাঁপিয়ে ইউরোপের সেরা ক্লাবটিকে এগিয়ে দেন সাদিও মানে। ৮২ মিনিটে জাহার গোলে সমতায় ফেরে স্বাগতিক শিবির। পয়েন্ট খোয়ানোর শঙ্কায় পড়েছিল লিভারপুল।

যদিও তিন মিনিটের ব্যবধানে গোল করে সংশয় উড়িয়ে দেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার রবার্তো ফিরমিনো। সিটি-লিভারপুলের জয়ের রাতে নিজেদের মাঠ এমিরেটস স্টেডিয়ামে পা হড়কেছে আর্সেনাল। উত্তর লন্ডনের ক্লাবটি যে ম্যাচে হারেনি এটাই বেশি।

দুবার পিছিয়ে থেকেও তালিকার ১৯ নম্বর দল সাউদ্যাম্পটনের সঙ্গে ২-২ গোলে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেছে আর্সেনাল। আট মিনিটে ইংস এগিয়ে দেন অতিথিদের। পাল্টা জবাব দিতে আর্সেনাল সময় নিয়েছে মিনিট দশেক। স্বাগতিকদের সমতায় ফেরান আলেক্সান্ডার লাকাজেত্তে।

৭১ মিনিটে সাউদ্যাম্পটন ফের এগিয়ে যায়। দ্বিতীয়বার তারা লিড পেয়েছে ওয়ার্ড প্রাউসের সৌজন্যে। তাতে হারের শঙ্কায় পড়ে উনাই এমেরির দল। এবারো গানারদের ত্রাতা হয়ে উঠলেন লাকাজেত্তে। যোগ করা সময়ের ষষ্ঠ মিনিটে গোল করে মহামূল্যবান এক পয়েন্ট এনে দেন ফরাসি ফরওয়ার্ড। লিগে ঘরের মাঠে শেষ ১৩ ম্যাচে ১২ গোল হলো লাকাজেত্তের।

এই হোঁচটে লিগ টেবিলের সাতে নেমে গেছে আর্সেনাল। তাদের পয়েন্ট ১৮। সমান ম্যাচ খেলে তাদের ওপরে আছে যথাক্রমে বার্নলি (১৮), উলভারহ্যাম্পটন (১৯), চেলসি (২৬), ম্যানচেস্টার সিটি (২৮), লেস্টার সিটি (২৯) ও লিভারপুল (৩৭)।