advertisement
আপনি দেখছেন

ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের চলতি মৌসুমের গ্রুপ পর্বের রোমাঞ্চ। আপাতত অপেক্ষা বাঁচা-মরার রাউন্ডের। নক আউটের শুরুর পর্ব পেয়ে গেছে সেরা ১৬ দলকে। এসব দলকে নিয়ে আজ রাতে শেষ ষোলোর ড্র অনুষ্ঠিত হবে। আপাতত উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় ভুগছে দলগুলো।

cristiano ronaldo celebration

শুধু কি ক্লাবগুলো? না, খেলোয়াড়রাও কিছুটা অস্বস্তিতে আছেন। ভুগছেন স্নায়ুচাপে। এখনই সাবেক ক্লাবের মুখোমুখি হতে চান না অনেক ফুটবলারই। তাদেরই একজন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। শেষ ষোলোতে সাবেক ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের সামনে পড়তে চান না পর্তুগিজ যুবরাজ।

স্প্যানিশ জায়ান্টদের ফাইনালে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেতে চান জুভেন্টাসের প্রাণভোমরা রোনালদো। বৃহস্পতিবার রাতে স্পোর্ট ইতালিয়াক বলেছেন, ‘রিয়াল (মাদ্রিদ) দুর্দান্ত একটা দল। কিন্তু আপনি যদি আমাকে জিজ্ঞেস করেন, তাহলে বলব আরো পরে তাদের মোকাবেলা করব। ফাইনালে মুখোমুখি হলে খুব ভালো লাগবে ‘

আজকের ড্রয়ের পর চ্যাম্পিয়নস লিগ যাবে লম্বা সময়ের বিরতিতে। আগামী ফেব্রুয়ারি থেকে গড়াবে নক আউট পর্বের ম্যাচগুলো। যেখানে রিয়াল মাদ্রিদ প্রতিপক্ষ হিসেবে পেতে পারে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড, চেলসি, অলিম্পিক লিওঁ কিংবা টটেনহামকে। ড্রয়ের নিয়ম অনুসারে একই গ্রুপ ও দেশের দুই দল শেষ ষোলোতে পরষ্পরকে পাবে না।

চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল ফুটবলার রোনালদো। সর্বোচ্চ পাঁচবার ইউরোপ সেরার রুপালি ট্রফি জিতেছেন তিনি। যার চারটিই রিয়ালের হয়ে। গত বছর স্প্যানিশ ক্লাবটির সঙ্গে নয় বছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে জুভেন্টাসে নাম লেখান ‘সিআর সেভেন’।

তুরিনের বুড়িরা তাকে মাদ্রিদ থেকে উড়িয়ে এনেছে চ্যাম্পিয়নস লিগের ট্রফি জয়ের জন্য। রোনালদো গত মৌসুমে নিজের সবটুকু নিংড়ে দিয়েছেন। কিন্তু দলীয় ব্যর্থতার বলি হয়েছে তার দুর্দান্ত পারফরম্যান্স। এবারো শিরোপা স্বপ্নে লড়ে যাচ্ছেন তিনি। এ যাত্রায় চার সপ্তাহ ইনজুরিতে ভুগলেও কাল রোনালদো জানালেন শতভাগ ফিট হয়ে উঠেছেন তিনি।