advertisement
আপনি দেখছেন

লিভারপুল থেকে বার্সেলোনায় নাম লিখিয়েছিলেন ফিলিপ্পে কুতিনহো। ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকারের অ্যানফিল্ড চত্ত্বর ছাড়ার সিদ্ধান্তটা যৌক্তিক ছিল কিনা সেই প্রশ্নটা উঠে গিয়েছিল। বার্সার একাদশে নিয়মিত সুযোগ পাচ্ছিলেন না তিনি মেসি, সুয়ারেজদের মতো বড় তারকাদের কারণে।

coutinho scored his first hat trick for bayern munich

প্রতিভা বেঞ্চে বসিয়ে রাখতে চায়নি স্প্যানিশ জায়ান্টরা। মোটা অংকে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ধারে খেলতে কুতিনহোকে পাঠিয়ে দেয় বার্সা। কিন্তু বাভারিয়ানদের হয়েও একই অবস্থা। নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারেছিলেন না ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার। অবশেষে গা ঝাড়া দিয়ে উঠলেন কুতিনহো।

শনিবার রাতে জার্মান লিগে করলেন দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দুবার জালের ঠিকানা খুঁজে নিলেন রবার্ট লেভানডফস্কি। এই দুজনের পারফরম্যান্সে ওয়ের্ডার ব্রেমেনকে ৬-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। তাতে টানা দুই হারের ধঁকল সামলে জয়ে ফিরল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

দাপুটে এই জয়ের পর পয়েন্ট তালিকায় তিন ধাপ এগিয়ে চারে উঠে এসেছে বায়ার্ন মিউনিখ। ১৫ ম্যাচে ২৭ পয়েন্ট তাদের। ২ পয়েন্ট দূরে থাকা বরুসিয়া ডর্টমুন্ড তালিকার তিনে আছে। ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত শীর্ষে আছে লাইপজিগ। ৩১ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে বরুসিয়া মনচেনগ্লাডব্যাচ। তারা অবশ্য এক ম্যাচ কম খেলেছে।

lewandowski added another goal

নিঃসন্দেহে বায়ার্নের বড় জয়ের নায়ক কুতিনহো। ব্রাজিলিয়ান তারকা এদিন কতটা অবিশ্বাস্য পারফর্ম করেছেন সেটা বোঝাতে একটি তথ্যই যথেষ্ঠ। বায়ার্নের ছয় গোলের পাঁচটিতেই থাকল কুতিনহোর ছোঁয়া। ব্রাজিলিয়ান তারকা নিজে করেছেন তিন গোল; সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন আরো দুটি। অভাবনীয় বটে!

বায়ার্ন মিউনিখ ৩৩ মিনিটের ব্যবধানে ছয়টি গোল করেছে। যার প্রথমটা এসেছে প্রথমার্ধের নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে। বিরতির বাঁশির আগেই যোগ করা সময়ের চতুর্থ মিনিটে দ্বিতীয় গোল। দ্বিতীয়ার্ধে ৭৮ মিনিটের মধ্যে আরো চার গোল করে টানা সাতবারের চ্যাম্পিয়নরা। দলের অন্য গোলটা টমাস ‍মুলারের।

আসলে ভুলটা করেছে ওয়েডার ব্রেমেন। আরেকটু ছোট করে বললে তাদের কসোভান মিডফিল্ডার মিলোত রাসিচা। ২৪ মিনিটে কাঁপান স্বাগতিকদের জাল; জাগিয়ে তোলেন বায়ার্নকে। গোল হজমের পর ব্রেমেনের ওপর হিংস্র বাঘের মতো ঝাঁপিয়ে পড়ে প্রধান কোচবিহীন দলটি। তাতে ক্ষত-বিক্ষত অতিথি দলটি।

দ্বিতীয়ার্ধের ১৫ মিনিটের মধ্যে চার গোল হজম করে ব্রেমেন। এ সময়ে বায়ার্নের জার্সিতে প্রথম হ্যাটট্রিক তুলে নেন কুতিনহো। বুন্দেসলিগায় তার গোল এখন ছয়টি। হ্যাটট্রিকের সুযোগ এসেছিল লেভানডফস্কির কাছেও। কিন্তু ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। তবু লিগে ১৮টি গোল হয়ে গেছে পোলিশ সেনসেশনের। সবমিলিয়ে মৌসুমে তার গোলসংখ্যা ২৯!