advertisement
আপনি দেখছেন

অবশেষে জয়ের মুখ দেখল আর্সেনাল। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে টানা চার ম্যাচে ড্রয়ের পর জয়ে ফিরল উত্তর লন্ডনের ক্লাবটি। রবি রাতে ঘরের মাঠ এমিরেটস স্টেডিয়ামে নিউক্যাসল ইউনাইটেডকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে আর্সেনাল।

nicolas pepe celebration after score

আর্সেনালের জয়ের রাতে সঙ্গী হয়েছে তাদের প্রতিবেশী ক্লাব টটেনহাম হটস্পার। কাল রাতে লিগের অন্য ম্যাচে অবশ্য স্পার্সদের মতো বড় জয় পায়নি হোসে মরিনহোর দল। অ্যাস্টন ভিলার মাঠে শেষ মুহূর্তের গোলে ৩-২ ব্যবধানে নাটকীয় জয় পেয়েছে টটেনহাম।

আর্সেনাল যে বড় জয় পেতে চলেছে সেটা শুরুতে বোঝার উপায় ছিল না। চার গোলের ম্যাচে প্রথমার্ধে গোলই করতে পারেনি তারা। অবশেষে দ্বিতীয়ার্ধে দলের চারজন করেছেন গোলগুলো। শেষ ছয় মিনিটে দুই গোল করে তারা। ৫৪ মিনিটে পিয়েরি-এমেরিক আউবামেয়াং গোলের সূচনা করেন।

লিগের চলতি মৌসুমে গ্যাবন স্ট্রাইকারের এটা ১৫তম গোল। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের পঞ্চম মিনিটে নিউক্যাসলের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন ফরাসি তারকা আলেক্সান্ডার লাকাজেত্তে। আর্সেনালের মাঝের গোল দুটি করেন নিকোলাস পেপে ও মেসুত ওজিল।

ভিলা পার্কে ম্যাচের বয়স দুই অংকে যাওয়ার আগেই গোল আত্মঘাতী হজম করে বসে টটেনহাম। অ্যাস্টন ভিলাকে গোল ‘উপহার’ দেন স্পার্সদের আল্ডারউইরেল্ড। সেই তিনিই ২৭ মিনিটে শাপমোচন করেন। সমতায় ফেরান টটেনহামকে। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে অতিথিদের এগিয়ে দেন সন হিয়ুং-মিন।

বিরতি থেকে ফিরেই লড়াইয়ে প্রাণ পায় অ্যাস্টন ভিলা। ৫৩ মিনিটে তাদের সমতায় ফেরান ইঙ্গেলস। এরপর অনেকটা সময় গোলখরা। ম্যাচটা ২-২ গোলে ড্রয়ের শঙ্কা জাগায়। লড়াইয়ের অন্তিম প্রহরে শঙ্কা উড়িয়ে দেন হিয়ুং-মিন। কোরিয়ান এই ফরওয়ার্ডের গোলে নাটকীয় জয় তুলে নেয় টটেনহাম।

শ্বাসরুদ্ধকর এই জয়ে লিগ টেবিলের পাঁচে উঠে এলো মরিনহোর দল। ২৬ ম্যাচে ৪০ পয়েন্ট টটেনহামের। তাদের প্রতিবেশী দল আর্সেনাল ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে দশে উঠে এসেছে। সমান ম্যাচে ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে যথারীতি শীর্ষে আছে লিভারপুল। ‍দুইয়ে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির অর্জন ৫১ পয়েন্ট। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন সিটি অবশ্য এক ম্যাচ কম খেলেছে।

sheikh mujib 2020