advertisement
আপনি দেখছেন

ডাগ আউট থেকে হারিয়ে গেছেন আর্সেন ওয়েঙ্গার। ‘দ্য প্রফেসর’ খ্যাত এই কোচ এখন ফিফার বৈশ্বিক ফুটবল উন্নয়নের প্রধানকর্তা হিসেবে কর্মরত আছেন। তাই খুব একটা খবরের শিরোনামেও আসেন না। অবশেষে খবরে এলেন আর্সেনালের প্রাক্তন কোচ। ফরাসি কোচকে গণমাধ্যমের সামনে এনেছে ম্যানচেস্টার সিটির নিষেধাজ্ঞা।

arsene wenger 2020

উয়েফার দলবদল, আর্থিক, লাইসেন্স নীতি ভঙ্গ ও তদন্তে বিভ্রান্ত করায় দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে সিটিজেনদের। একই সঙ্গে ম্যানচেস্টার জায়ান্টদের ৩০ মিলিয়ন ইউরো জরিমানা করেছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা উয়েফা। এমন দুঃসময়ে সিটির পাশে এসে দাঁড়িয়েছে বিখ্যাত অনেক কোচই।

কিন্তু ওয়েঙ্গার অন্য ধাতুতে গড়া। হুজুকে তাল মেলান না বলেই অন্যদের চেয়ে একদম আলাদা তিনি। তাই সিটির জন্যও কোনো সমবেদনা নেই তার। এক সময়কার প্রতিদ্বন্দ্বী সিটির জন্য ওয়েঙ্গারের ব্যথিত না হওয়াটাই স্বাভাবিক। তিনি যে এখন আর কোচ নেই! বরং গোটা বিশ্বের ফুটবল উন্নয়নের একজন পথ প্রদর্শক ওয়েঙ্গার।

সেই তিনি কীভাবে অন্যায়ের পক্ষপাতিত্ব করবেন! তাই সিটির বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার নির্দেশ দিলেন ফরাসি কোচও। আর্সেনাল ও মোনাকোর প্রাক্তন কোচের মতে দুর্নীতি করে থাকলে শাস্তিটা সিটির জন্য উপযুক্ত। সোমবার রাতে ওয়েঙ্গার বলেছেন, ‘যদি সিটি নিয়ম ভেঙে থাকে, শাস্তি তাদের পেতেই হবে। কোনো ছাড় দেওয়া উচিত হবে না।’

ইংলিশ লিগের ইতিহাসের অন্যতম সেরা কোচ ওয়েঙ্গার আরো বলেছেন, ‘আমি সবসময় (কোচ থাকাকালীন) আর্থিক নীতিমালা অনুরসণ করতাম। দেখতে হবে ক্লাব যে আয় করছে, সেটা কতটা স্বচ্ছ। যখন আইনটা করা হয় তখন আমি এতে সমর্থন দিয়েছিলাম। আপানাকেও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। যদি নিয়ম-নীতির প্রতি শ্রদ্ধা না থাকে তাহলে এটাকে খেলা বলে না। কেউ আইন ভাঙলে শাস্তি পাবে এটাই স্বাভাবিক।’

sheikh mujib 2020