advertisement
আপনি দেখছেন

আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে জমে উঠেছিল ম্যাচ। দুই দলের ফরওয়ার্ডরাও বসালেন গোল মিসের পসরা। উত্তেজনার রেণু ছড়ানো ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত নির্ধারণ হয়েছে পেনাল্টি গোলে। স্পট কিক থেকে বহুল কাঙ্খিত গোলটি করেছেন লিওনেল মেসি। আর তাতেই রিয়াল সোসিয়েদাদকে ১-০ গোলে হারাল বার্সেলোনা।

lionel messi barcelona 2020 1

কাঠখড় পোড়ানো এই জয়ে এল ক্লাসিকো হারের ধাক্কাটা সামলে নিল কাতালান ক্লাবটি। একই সঙ্গে রিয়াল মাদ্রিদকে টপকে স্প্যানিশ লা লিগার শীর্ষে উঠে এলেন মেসিরা। ২৭ ম্যাচে ৫৮ পয়েন্ট বার্সার। এক ম্যাচ কম খেলে দুই পয়েন্ট পিছিয়ে দুইয়ে নেমে গেছে রিয়াল। আজ রাতে অবশ্য শীর্ষে ফেরার সুযোগ রয়েছে দলটির।

শনিবার রাতে ঘরের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে ৮১ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোলটি করেছেন মেসি। আর্জেন্টাইন তারকা এ জন্য ধন্যবাদ দিতে পারেন রবিন লা নরম্যান্ডকে। নিজেদের ডি-বক্সে হ্যান্ডবল করেন সোসিয়েদাদ ডিফেন্ডার। পরে ভিএআরের সহায়তা নিয়ে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন রেফারি।

ওই হ্যান্ডবলটাই কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে সোসিয়েদাদের জন্য। উড়তে থাকা দলটা মাটিতে নামল তাতে। সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা ছয় ম্যাচে জিতেছিল সোসিয়েদাদ। ন্যু ক্যাম্প সফরে এসে জয়ের ধারা থেকে ছিটকে গেল তারা। তবে টানা সপ্তম জয়ের লক্ষ্যে চেষ্টার কোনো ত্রুটি রাখেনি সোসিয়েদাদ।

অতিথিদের সবচেয়ে বেশি হতাশ করেছেন বার্সা গোলরক্ষক মার্ক-আন্দ্রে টের স্টেগেন। নিরাশ করছিলেন মেসিও। ম্যাচজুড়ে কয়েকটা সুযোগ পেয়েও তা হাত ছাড়া করেছেন সবশেষ সাত ম্যাচের ছয়টিতে গোল না পাওয়া আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। অবশেষে ম্যাচের শেষ দিকে এসেছে স্বস্তির গোল।

দ্বিতীয়ার্ধে সোসিয়েদাদের বিপদসীমায় মুহুর্মুহু আক্রমণ চালিয়েছে বার্সা। মেসিদের তোপ সামলাতে গিয়েই পেনাল্টি দিয়ে বসে সফরকারীরা। সুযোগটা হাতছাড়া করননি বার্সা অধিনায়ক। কাতালানদের জয়ের ব্যবধান বাড়তে পারতো। দ্বিতীয়ার্ধের ইনজুরি টাইমে গোল করেছিলেন জর্ডি আলবা। কিন্তু বৃথা গেছে মেসির জোগানটা। আনসু ফাতির অফসাইডের বলি হয়েছে আলবার গোলটা!

বার্সেলোনার জয়ের রাতটা হতাশায় কেটেছে জায়ান্ট দল অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের। কাল রাতে লিগের অন্য ম্যাচে ঘরের মাঠে সেভিয়ার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছে তারা।