advertisement
আপনি দেখছেন

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের চলতি মৌসুমের সবচেয়ে পরিচিত দৃশ্য- বড় ম্যাচে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জ্বলে ওঠা। রবিরাতে আরো একবার সেই দৃশ্যের পুনর্মঞ্চায়ন হলো। এবার ‘ম্যানচেস্টার ডার্বি’তে গা ঝাড়া দিয়ে উঠল ইউনাইটেড; হারিয়ে দিল নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটিকে। কাল রাতে সিটিকে ডেকে এনে ২-০ গোলে হারিয়েছে রেড ডেভিলসরা।

anthony martial celebration

লিগের চলতি মৌসুমে প্রথমবারের সাক্ষাতেও সিটিজেনদের হারিয়েছিল ম্যানইউ। ওই জয়টা ছিল সিটির দুর্গ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে। ছন্দটা ঘরের মাঠ ওল্ড ট্রাফোর্ডে-ও ধরে রাখল ওলে গানার সুলশারের দল। রাজসিক পারফরম্যান্সে দশ বছরের মধ্যে প্রথমবার লিগে ডাবলস ডার্বি জিতল লাল শিবির। এমন জয়ের রাতে দারুণ একটা কীর্তি গড়লেন অ্যান্তনি মার্শিয়াল।

এই শতাব্দীতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের দ্বিতীয় ফুটবলার হিসেবে লিগের এক মৌসুমে ডার্বির দুই লেগে গোল করার দারুণ এক কীর্তি গড়লেন অ্যান্তনি মার্শিয়াল। পরিচিত দর্শকদের সামনে ৩০ মিনিটে স্বপ্নের গোলটি করেন ইংলিশ ফরওয়ার্ড। তার আগে ডার্বির দুই লেগে গোল করার কীর্তি গড়েছিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর (২০০৬-০৭)।

মার্শিয়ালের গোলটার আর শোধ দিতে পারেনি পেপ গার্দিওলার সিটির। উল্টো ম্যাচের অন্তিম প্রহরে আরো একবার কেঁপে ওঠে ডিঠেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের জাল। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের ষষ্ঠ মিনিটে ম্যাকটমিনে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। তাতে ইউনাইটেডের ডার্বির জয়ের আনন্দ বেড়ে গেছে কয়েকগুণ। সবশেষ স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের অধীনে লিগ মৌসুমে জোড়া ডার্বি জিতেছিল ম্যানইউ। সিটির দুই গোল হজমের দায়টা এডারসন। দুটি গোলই হয়েছে ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষকের ভুলে।

দুই ম্যানচেস্টারের লড়াইয়ের দিনে গোল উৎসব করেছে চেলসি। ঘরের মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে এভারটনকে ডেকে এনে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে পশ্চিম লন্ডনের ক্লাবটি। এমন একটা জয়ের পরও মন ভরেনি ব্লুজদের প্রধান কোচ ফ্র্যাঙ্ক ল্যাম্পার্ডের। ইংলিশ এই কোচ পুরোপুরি তৃপ্ত হতে পারলেন না পুরনো গুরু ও এভারটন কোচ কার্লো আনচেলত্তিকে হারিয়েও।

এর আগে ক্লাবের এবং নিজের আরেক প্রাক্তন কোচ হোসে মরিনহোকেও রণকৌশলে হারিয়ে দিয়েছিলেন ল্যাম্পার্ড। আনচেলত্তি-মরিনহো এই দুই কোচের অধীনে খেলেই চেলসির কিংবদন্তি ফুটবলার হয়ে উঠেছিলেন তিনি। সাবেক কোচদের বিরুদ্ধে এই মৌসুমে এটা তৃতীয় জয় হলো তার। এই জয়ে লিগ টেবিলের চার নম্বর জায়গাটা ধরে রাখল ল্যাম্পার্ডের দল চেলসি। ২৯ ম্যাচে ৪৮ পয়েন্ট তাদের।

সমান ম্যাচে ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে উঠে এলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তাদের জয়ের দিন উৎসব হয়েছে মার্সিসাইডেও। কারণ সিটির হারে যে লিগ শিরোপা জয়ের পথে আরো একধাপ এগিয়ে গেছে ওই শহরের ক্লাব লিভারপুল। দীর্ঘ তিন দশক পর ইংলিশ লিগ শিরোপা জিততে আর মাত্র পাঁচ পয়েন্ট দরকার অল রেডদের। ২৯ ম্যাচে ৮২ পয়েন্ট তাদের। এক ম্যাচ কম খেলে ম্যানচেস্টার সিটি তাদের চেয়ে ২৫ পয়েন্ট পিছিয়ে আছে!

একনজরে ফলাফল

চেলসি ৪-০ এভারটন

ম্যানইউ ২-০ ম্যানসিটি

sheikh mujib 2020