advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনের উহান প্রদেশ। এখান থেকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে ভাইরাসটি। বিশ্বের কোন অঙ্গনে সংক্রমণ হয়নি এটা! স্বাভাবিকভাবেই নেতিবাচক প্রভাব পড়ল ফুটবল দুনিয়ায়। ইউরোপিয়ান ফুটবল তো এক প্রকার ভঙ্গুর হয়ে গেছে। দুই-একটা ম্যাচ আয়োজন হলেও তা হচ্ছে দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে!

casemiro real madrid 2019 20

ইউরোপের বেশ কয়েকটি টুর্নামেন্ট ইতোমধ্যে স্থগিত করা হয়েছে। আজ বিকেলে লা লিগার সব ম্যাচ বন্ধ করার ঘোষণা এসেছে। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে স্প্যানিশ বড় ক্লাবগুলো কী করবে! বিশেষ করে রিয়াল মাদ্রিদ কিংবা বার্সেলোনা। তাদের যে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচ আছে। শঙ্কাটা বেশি হচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদকে ঘিরে।

আজ রিয়াল মাদ্রিদ বাস্কেটবল দলের এক খেলোয়াড়ের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। এ কারণেই মূলত স্থগিত করা হয়েছে স্প্যানিশ লিগার সব খেলা। কিন্তু প্রশ্ন হলো বাস্কেটবল থেকে ফুটবল মিশ্রণ কী করে হতে পারে। ব্যাপারটা হচ্ছে- রিয়াল মাদ্রিদের ফুটবল ও বাস্কেটবল দুই দলই একই অনুশীলন মাঠ ও সুযোগ সুবিধা ব্যবহার করে থাকে। আশঙ্কটা এখানেই।

তাই আগে থেকেই সতর্ক হয়ে গেছে স্প্যানিশ ফুটবল কর্তৃপক্ষ। ইতোমধ্যে রামোস-বেলদের এবং রিয়ালের বাস্কেটবল খেলোয়াড়দের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। আগামী ১৫ দিন পর্যন্ত গৃহবন্দি থাকবেন তারা। তাতে অনিশ্চয়তার মুখে পড়ল রিয়াল মাদ্রিদ-ম্যানচেস্টার সিটির বিগ ম্যাচটা। আগামী মঙ্গলবার উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলো দ্বিতীয় লেগের ম্যাচটা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

রিয়ালের সব ফুটবলারকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানোয় ম্যাচটার আয়োজন হবে না বলে আশঙ্কার কথা জানিয়েছে স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কা। ইউরোপের ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা উয়েফা বিষয়টা নাকি পর্যবেক্ষণ করছে। আজ-কালের মধ্যে সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারে উয়েফা। ইতোমধ্যে ইউরোপা লিগের সব ম্যাচ স্থগিতের কথা শোনা যাচ্ছে। যে কোনো সময় চ্যাম্পিয়নস লিগ স্থগিতের ঘোষণা আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।