advertisement
আপনি দেখছেন

বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাব। অনেকের কাছে সর্বকালের সেরা ফুটবল ক্লাব এটাই। অথচ একটা জায়গায় বহু বছর ধরে অন্যদের চেয়ে বেশ পিছিয়ে আছে রিয়াল মাদ্রিদ। অবশেষে পেছন থেকেই শুরু করতে যাচ্ছে লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। ক্লাবের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো নারী দলের যাত্রা শুরু করার অপেক্ষায় রিয়াল মাদ্রিদ।

real madrid football club women team

বড় মঞ্চে অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা দলটার নাম ছিল টেকন। গত বছর স্পেনের শীর্ষস্থানীয় লিগে উঠে এসেছে। এই দলটার নামই হয়ে গেল রিয়াল মাদ্রিদ ফেমিনিনো। মাদ্রিদ ভিত্তিক এই ক্লাবের মালিকানা স্বত্ব পাল্টাতে ৩ লাখ ইউরো খরচ করতে হলো রিয়ালকে। ক্রীড়া উন্নয়নে এটা রিয়াল মাদ্রিদের বড় একটা পদক্ষেপ হয়ে থাকল।

নারী ফুটবল দলের যাত্রা প্রসঙ্গে বুধবার রাতে রিয়াল মাদ্রিদের প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ বলেছেন, ‘আরেকটা দল তৈরি করার সময় এসে গেছে। এতে আপনারা গর্বিত হবেন।’ গর্ববোধ হওয়ারই কথা। কারণ এতদিন রিয়াল মাদ্রিদের কোনো নারী দল ছিল না; এমন একটা ক্লাবের নারী দল না থাকাটাই এতদিন সবার কাছে আশ্চর্যের ছিল।

real madrid players celebration

রিয়াল মাদ্রিদের এই পদক্ষেপে সাধুবাদ জানিয়েছে বিশ্বজুড়ে ফুটবলের রথী-মহারথীরা। ২০০৮ সাল তথা, প্রথম ব্যালন ডি’অরজয়ী নারী ফুটবলার আদা হেগেরবার্গ বলেছেন, ‘আমার বিশ্বাস ওরা (রিয়াল মাদ্রিদ কর্তৃপক্ষ) ভবিষ্যতের কথা ভেবে এই দলটায় বিনিয়োগ করবে। এটা নারী ফুটবলের জন্য ইতিবাচক একটা দিক।’

২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল টেকন। যা এখন রিয়াল মাদ্রিদ নারী দল। ইতোমধ্যেই তারা দলে টেনেছে ব্যালন ডি’অর ২০১৯-এ মনোনয়ন পাওয়া কসোভারে অ্যাসলানি ও সোফিয়া জ্যাকবসনকে। এসি মিলান থেকে ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার থায়সাকেও উড়িয়ে এনেছে রিয়াল মাদ্রিদ। বোঝাই যাচ্ছে ছেলেদের মতো মেয়েদের দলটাকেও বিশ্বসেরা বানানোর প্রস্তুতি নিয়ে নামছে রিয়াল।

sheikh mujib 2020