advertisement
আপনি দেখছেন

ক্রিকেটের উন্মাদনায় ফুটবলের খোঁজ নেয়ার সময় নেই এদেশের সমর্থকদের। সারাবছর সাকিব-তামিমদের নিয়ে গলা ফাটাতে গিয়ে জামাল-সাদরা অনেকটা আড়ালেই পড়ে থাকেন। এজন্য যথার্থ কারণও আছে। ব্যাট-বলের লড়াইয়ে যে সফলতা পায় বাংলাদেশ, ফুটবলে যে নেই তার ছিটেফোঁটাও। 

sad uddin bangladesh footbalসাদ উদ্দিন

প্রতি দশকে খুব কম সুযোগই আসে, যখন ফুটবলের জন্য ৯০ মিনিট সময় গ্যালারিতে বা টিভির সামনে ব্যয় করে লাল-সবুজের ফুটবলপ্রেমীরা। গতবছরের ৮ অক্টোবর ছিল এমনি একটি দিন। কলকাতার সল্টলেকে বিশ্বকাপ ফুটবলের বাছাইপর্বের ম্যাচে সেদিন ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামে জামাল ভূঁইয়ার দল। সাদ উদ্দিনের হেড স্বাগতিকদের জালের ঠিকানা পেতেই পিনপতন নীরবতা নেমে আসে কানায় কানায় পূর্ণ যুবভারতীতে। অবশ্য শেষ মুহূর্তের গোলে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেই মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা। 

বিশ্ব আসরের বাঁছাইপর্বের ম্যাচে এবার ভারতকে আতিথেয়তা দিবে বাংলাদেশ। ১২ নভেম্বর ঢাকায় হবে ম্যাচটি। তবে ঘরের মাঠে সুযোগটা নষ্ট করতে চান না সাদ উদ্দিন। জানালেন ওই ম্যাচ থেকে উৎসাহ নিয়েই হারাবেন পড়শীদের, 'নিজেদের মাটিতে খেলা সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ। আর ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটা আরো বেশিই প্রাধান্য পাবে। আমরা এর আগে ভালো প্রস্তুতি নিবো। হোম ম্যাচেও আমি গোল করার চেষ্টায় থাকবো। দিনশেষে ওদের হারাতেই মাঠে নামবো আমরা।'

bangladesh football dalবাংলাদেশ ফুটবল দল

ভারতের বিপক্ষে ওই ম্যাচে বাংলাদেশ দলটা অনেক ভালো ছিল। সবাই দলগত পারফরম্যান্স করেছে। তাই সেদিনের ধারাবাহিকতা রাখতে পারলে জেতা সম্ভব। তবে কাজটা যে এতো সহজ হবে না সেটাও মানছেন সিলেটের এই ফুটবলার, 'ওই ম্যাচটাতে আমাদের দল অনেক ভালো ছিল। ওরাও সেরা দল নিয়ে মাঠে নামে। যদি আমরা সেদিনের মতো দলগত পারফরম্যান্স করতে পারি, তাহলে ওদের হারানো সম্ভব। লড়াইটা এতো সহজ হবে না। তবে আমরা ঘরের মাঠের পূর্ণ সুবিধা নিতে চাই।'

sheikh mujib 2020