advertisement
আপনি দেখছেন

কয়েক ঘণ্টা আগের কথা। অ্যাথলেটিক বিলবাওকে ১-০ গোলে হারিয়ে পয়েন্ট ব্যবধান বাড়িয়ে সাত করে ফেলেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। স্বাভাবিকভাবেই চাপে পড়ে গিয়েছিল বার্সেলোনা। চাপটা রীতিমতো স্নায়ুচাপে পরিণত হয়েছে লা লিগার শেষ চারটি অ্যাওয়ে ম্যাচের তিনটিতেই পয়েন্ট খোয়ানোর কারণে।

griezmann messi villarreal barcelona

পঞ্চম অ্যাওয়ে ম্যাচে বার্সা এমনই প্রতিপক্ষ পেয়েছে যে, লিগ নতুন শুরুর পর দারুণ ছন্দে আছে দলটি। সবশেষ ছয় ম্যাচের পাঁচটিতে জয় ও ড্র করেছে অন্যটিতে। কিন্তু ছন্দটা শেষ পর্যন্ত ঘরের মাঠে ধরে রাখতে পারল না ভিয়ারিয়াল। রোববার রাতে ভিয়ারিয়ালকে তাদেরই মাঠে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করলেন লিওনেল মেসি অ্যান্ড কোং।

মেসির ক্লাব ছাড়ার গুঞ্জন, মাঠের ভেতরে ছন্নছাড়া পারফরম্যান্স ও ক্লাবের অভ্যন্তরীণ কোন্দল- সবমিলিয়ে খুব বাজে সময় যাচ্ছিল বার্সেলোনার। ভিয়ারিয়াল ম্যাচে সব জঞ্জাল উপড়ে ফেলল কাতালানরা। দলকে যোগ্য নেতৃত্বটাই দিয়েছেন মেসি। নিজে গোল না পেলেও সতীর্থদের দুটি গোলে রেখেছেন প্রত্যক্ষ অবদান।

আর্জেন্টাইন তারকার সৌজন্যে লা লিগায় ১০ ম্যাচের গোলখরা ঘুচিয়েছেন অ্যান্তনিও গ্রিজম্যান। গোল পেয়েছেন আক্রমণভাগের আরেক সারথি লুইস সুয়ারেজও। শেষ দিকে বার্সার শেষ গোলটি করেছেন তরুণ ফরওয়ার্ড আনসু ফাতি। তবে গোল না করেও ম্যাচের নায়কবনে গেলেন ছয়বারের বর্ষসরা ফুটবলার মেসি।

villarreal barcelona la liga 2020

লিগের এই মৌসুমে সতীর্থদের দিয়ে ১৯টি গোল করিয়েছেন তিনি। যা গত এক দশকে কোনো ফুটবলারের সর্বোচ্চ অ্যাসিস্ট। কাল রাতে মেসির বর্ণিল পারফরম্যান্সে খুঁত বলতে তার গোল না পাওয়াটা। সেটা অবশ্য অন্যরা পুষিয়ে দিয়েছেন। তবে বড় জয়ের ম্যাচটার শুরুর দিকটা কঠিন ছিল বার্সার জন্য।

ম্যাচের তিন মিনিটে তোরেসের আত্মঘাতী গোলে লিড নেয় বার্সা। যদিও অগ্রগামিতা ১১ মিনিটের বেশি ধরে রাখতে পারেনি অতিথিরা। ১৪ মিনিটে মনেরোর গোলে সমতায় ফেরে ভিয়ারিয়াল (১-১)। পাল্টা জবাব দিতে বার্সা সময় নিয়েছে মোটে ছয় মিনিট। কুড়ি মিনিটে দ্বিতীয়বার কাতালানরা লিড পায় সুয়ারেজের গোলে।

বিরতিতে যাওয়ার আগ মুহূর্তে ব্যবধান বাড়ান গ্রিজম্যান। লা লিগার চলতি মৌসুমে এটা ফরাসি তারকার নবম গোল। সুযোগ পেয়ে আবারো জালের ঠিকানা খুঁজে নিলেন ফাতি। ফরওয়ার্ডদের সম্মিলিত পারফরম্যান্সে লা লিগার শিরোপা আশা বাঁচিয়ে রাখল বার্সা। ৩৪ ম্যাচে ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে তারা। সমান ম্যাচে চার পয়েন্ট বেশি নিয়ে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে রিয়াল মাদ্রিদ।

sheikh mujib 2020