advertisement
আপনি দেখছেন

সবধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা তিন ম্যাচ জিততে পারেনি রিয়াল মাদ্রিদ। সাতদিনের মধ্যে কেটে যায় তাদের ছন্দ। চেনারূপে ফিরতে অবশ্য সময় লাগেনি। উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে শাখতার দানেৎস্ককে তাদেরই মাঠে ৫-০ গোলে উড়িয়ে ফেরার বার্তা দেয় কার্লো আনচেলত্তির দল।

barcelona and real madrid 2ড্র করেছে রিয়াল মাদ্রিদ, হেরেছে বার্সেলোনা

এরপর স্প্যানিশ লা লিগায় ফিরে ‘এল ক্লাসিকো’তে বার্সেলোনার মাঠে রিয়াল জেতে ২-১ গোলে। টানা এই দুই জয়ের পর আবার পথ হারাল মাদ্রিদ জায়ান্টরা। বুধবার রাতে ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে পয়েন্ট খুইয়েছে আনচেলত্তির দল। মাদ্রিদে এসে রিয়ালকে গোলশূন্য ব্যবধানে রুখে দিয়েছে ওসাসুনা।

রিয়াল অন্তত পয়েন্ট পেয়েছে। তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার কপালে তাও জোটেনি। রায়ো ভায়োকানোর মাঠ থেকে ১-০ গোলে হারের হতাশা নিয়ে ঘরে ফিরেছে বার্সা। লা লিগায় পরপর দুই হারের পর চাকরি গেল দলটির প্রধান কোচ রোনাল্ড কোম্যানের। কাল রাতে ম্যাচ শেষে ডাচ কোচকে সরিয়ে দিয়েছে বার্সা।

ronald koeman sad 2শেষমেশ চাকরিটা খোয়ালেন কোম্যান

পরিচিত দর্শকদের সামনে ম্যাচজুড়ে একচেটিয়া দাপট দেখিয়েছে রিয়াল। বলের দখল, আক্রমণ, পাসিং, প্লেসিং- সবকিছুতেই আধিপত্য ছিল তাদের। কিন্তু কাজের কাজটাই সারতে পারেনি তারা। গোলের উদ্দেশ্যে ১৭টি শট নিয়েও জালের নাগাল পায়নি স্বাগতিকরা। তন্মধ্যে তিনট শিট ছিল লক্ষ্যে।

বিপরীতে ওসাসুনা সাতটি শট নিলেও গোলমুখে ছিল না একটিও। তবে পয়েন্ট পেয়েই ভীষণ খুশি ওসাসুনা। লা লিগায় দীর্ঘ ১৬ বছর পর রিয়াল মাদ্রিদের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে এসে হার ঠেকিয়েছে তারা। এই ড্রয়ে পয়েন্ট তালিকার ছয় নম্বরে থাকল ওসাসুনা। ১১ ম্যাচে ১৯ পয়েন্ট তাদের।

আর হোঁচট খাওয়ার পরও লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠেছে রিয়াল মাদ্রিদ। ১০ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট আনচেলত্তির দলের। কিন্তু শীর্ষে উঠলেও স্বস্তিতে নেই রিয়াল। তাদের পেছনে থাকা তিনটি দলেরই সংগ্রহ ২১ পয়েন্ট! পার্থক্য কেবল গোলের। দুই তিন ও চারে আছে যথাক্রমে সেভিয়া, রিয়াল বেটিস ও রিয়াল সোসিয়েদাদ।

কাল রাতে ভ্যালেন্সিয়াকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে তিনে উঠে এসেছে রিয়াল বেটিস। শীর্ষ চার দলের মধ্যে তারা একটি ম্যাচ বেশি খেলেছে। বার্সাকে হারিয়ে লিগ টেবিলের পাঁচে উঠে এসেছে ভায়োকানো। ১১ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ১৯ পয়েন্ট। অঘটনের শিকার হওয়া বার্সা ১০ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের নবম স্থানে থাকল।

ভায়োকানোর মাঠে পয়েন্ট পাওয়ার সুযোগ এসেছিল বার্সেলানার। কিন্তু তা হাতছাড়া করেন প্রাণভোমরা মেম্ফিস ডিপেই। ম্যাচের ৭২ মিনিটে পেনাল্টি মিস করেন ডাচ উইঙ্গার। বার্সার জার্সিতে তৃতীয়বার পেনাল্টি নিয়ে গোল করতে ব্যর্থ হলেন ডিপেই। ক্যারিয়ারে ৩৬ পেনাল্টির মধ্যে এটা তার নবম মিস।

বার্সেলোনা ধাক্কা খায় ম্যাচের প্রথমার্ধেই। ৩০ মিনিটে কাতালানদের জালে বল জড়িয়ে ভায়োকানোকে লিড এনে দেন রাদামেল ফ্যালকাও। আপ্রাণ চেষ্টা করেও কলম্বিয়ান ফরওয়ার্ডের গোলটার শোধ দিতে পারেনি বার্সা। ৭২ মিনিটে সুযোগ এলেও তা হাতাছাড়া করেন ডিপেই। তাতে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ে স্বাগতিক শিবির।