advertisement
আপনি দেখছেন

আজ ২৫ নভেম্বর। গত বছরের এই দিনে কোটি ভক্তকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন আর্জেন্টিনার ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনা। দেখতে দেখতেই এক বছর গত হয়ে গেছে। প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে ম্যারাডোনাকে স্মরণ করেছেন তার যোগ্য উত্তরসূরি এবং প্যারিস সেন্ট জার্মেই, পিএসজির তারকা ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসি।

messi and maradona 4ম্যারাডোনা ও মেসির এই ছবি এখন শুধুই স্মৃতি

আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েনস আয়ারসের নিজে বাসভবনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ৬০ বছর বয়সে পরলোক গমন করেন ম্যারাডোনা। তার অধীনে ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয় আর্জেন্টিনা। সাবেক অধিনায়কের মৃত্যুশোকে মুহ্যমান হয়ে পড়েন বর্তমান সময়ের অনেক নামিদামি তারকারা। তবে ফুটবল ঈশ্বরের মৃত্যু বাকিদের থেকে একটু বেশিই পুড়িয়েছে মেসিকে।

ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর ২০২০ সালের ২৯ নভেম্বর স্প্যানিশ লা লিগায় ওসাসুনার বিপক্ষে মাঠে নামে বার্সেলোনা। ক্যাম্প ন্যুতে ম্যাচের ৭৩ মিনিটে গোল করে সাবেক নাপোলি তারকাকে শ্রদ্ধা জানাতে বার্সার জার্সি খুলে নিচে পরে আসা নিউওয়েলস ওল্ড বয়েজের দশ নম্বর জার্সি উন্মুক্ত করেন ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী। ইউরোপের নামিদামি বেশ কয়েকটি ক্লাবের পাট চুকিয়ে নিজ দেশের ক্লাব নিউওয়েলসে যোগ দিয়েছিলেন ম্যারাডোনা।

diego maradona 2গত বছর না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন ম্যারাডোনা

ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর এক বছর অতীত হয়ে গেছে এটা বিশ্বাস হচ্ছে না মেসির। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে দেওয়া বার্তায় সাবেক বার্সা অধিনায়ক লেখেন, ‘ম্যারাডোনা সবাইকে ছেড়ে চলে যাওয়ার পর এক বছর কেটে গেছে এটা অবিশ্বাস্য মনে হচ্ছে। তাকে ছাড়াই আর্জেন্টিনা এত বছর পর আবারও কোপা আমেরিকায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আপনি সবসময় মনে করেন যে, কোনো না কোনো সময় তাকে আবার টিভিতে, একটি সাক্ষাৎকারে বা কোনো বিষয়ে মতামত দিতে দেখেন। কিন্তু তিনি মারা গেছেন এবং এটা গতকালের মতো মনে হচ্ছে।’

ম্যারাডোনার সান্নিধ্য পেয়ে নিজেকে ধন্য মনে করেন মেসি, ‘ম্যারাডোনার সাথে কাটানো মুহূর্তগুলো আমি সব সময় মনে রাখবো। আমাদের স্মৃতিগুলো দুর্দান্ত। তাকে কাছে পেয়ে আমি ভাগ্যবান ছিলাম।’