advertisement
আপনি পড়ছেন

ক্যারিয়ারের সপ্তম ব্যালন ডি’অর জিতেছেন লিওনেল মেসি। বিষয়টা মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে বেশ কিছু বর্তমান এবং সাবেক খেলোয়াড়ের। তাদের দাবি, এবারের মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কারটি পাওয়া উচিত ছিল বায়ার্ন মিউনিখের প্রাণভোমরা রবার্তো লেভানডফস্কির। এই কথার সাথে একমত নন জাভি হার্নান্দেজ। স্পেনের কিংবদন্তি ফুটবলার মনে করেন, আর্জেন্টিনার অধিনায়ক ব্যালন ডি’অর জেতায় ফুটবলের ন্যায়বিচার হয়েছে।

xavi and messi ballon d orজাভি হার্নান্দেজ ও লিওনেল মেসি

গত ২৯ নভেম্বর প্যারিসে জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ২০২১ সালের ব্যালন ডি’অর দিয়েছে ফ্রান্স ফুটবল ম্যাগাজিন। যেখানে দ্বিতীয় হয়েছেন দৌঁড়ে এগিয়ে থাকা পোল্যান্ডের তারকা স্ট্রাইকার লেভা। সেরা পাঁচেও জায়গা হয়নি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর। ষষ্ঠ হয়েছেন ম্যানচেস্টার সিটির ফরোয়ার্ড এবং পর্তুগীজ অধিনায়ক রোনালদো।

মেয়েদের ব্যালন ডি’অর জিতেছেন অ্যালেক্সিয়া পুটিলেস। অন্যদিকে কোপা ট্রফি উঠেছে স্প্যানিশ তরুণ খেলোয়াড় পেদ্রির হাতে। এদের সবাইকে অভিনন্দন জানিয়েছেন জাভি। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘প্রথমেই পুটিলেসকে অভিনন্দন জানাতে চাই। কোপা ট্রফি জেতায় পেদ্রিকেও আমার পক্ষ থেকে অভিনন্দন। মেসি ব্যালন ডি’অর জেতায় ফুটবলের ন্যায়বিচার হয়েছে। অনেকেই বলছে, পুরস্কারটা অন্য কারও পাওয়া উচিত ছিল। কিন্তু মেসির নাম ঘোষণার মাধ্যমে ন্যায়বিচার করেছে ব্যালন ডি’অর কর্তৃপক্ষ।’

roberto lewandoski ballon d orব্যালন ডি’অরে মেসির প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন লেভা

ভবিষ্যতে মেয়েদের কোচ হওয়ার সম্ভাবনা আছে জাভির, ‘গত কয়েক বছর ধরে মেয়েরা অনেক ভালো ফুটবল খেলছে। তারা ট্যাকনিক্যাল দিক থেকে অনেক উন্নতি করছে। তাদের প্রতি আমার পূর্ণ সম্মান আছে। আমি মেয়েদের বেশ কিছু ম্যাচ দেখেছি। তাতে আমার অনেক ভালো লেগেছে। বেশ কিছু নারী প্রতিভাবান খেলোয়াড় চোখে পড়েছে। ভবিষ্যতে মেয়েদের কোচিং করাতে পারি। সে সম্ভাবনা এখনও ফুরিয়ে যায়নি।’