advertisement
আপনি পড়ছেন

ম্যানচেস্টার সিটি ২। লিভারপুল ৩। স্কোর লাইন দেখে বিভ্রান্ত হতে পারেন। কেউ কেউ ভাবতে পারেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের এই মৌসুমের দুই লেগের রোমাঞ্চ বোধহয় এফএ কাপেও দেখা গেছে। বাস্তবতা ঠিক উল্টো। দুই জায়ান্টের ফাইনালে ওঠার লড়াইটা হয়েছে একপেশে। আজ বিখ্যাত ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে সিটিকে সহজেই হারিয়ে দিয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপের লিভারপুল।

liverpool celebrate fa cup final manchester cityফাইনাল নিশ্চিতের পর লিভারপুলের উদযাপন, ছবি- মার্কা

ইংলিশ লিগের আগের দুই ম্যাচই ড্র হয়েছে ২-২ গোলে। দুটো ম্যাচেই ছড়িয়েছে রেণু ছড়ানো উত্তেজনা। সেই তুলনায় এফএ কাপের লড়াইটা জমল না ম্যাচের শুরুতেই সিটি দুই গোল হজম করায়। নয় মিনিটে লাল শিবিরকে উচ্ছ্বাসে ভাসান কোনাতে। এই গোলের রাশ কাটতে না কাটতেই ১৭ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সাদিও মানে। প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে স্কোর লাইন ৩-০ করেন অল রেডদের সেনেগালিজ ফরওয়ার্ড।

তিন গোল হজমের পর ঘুম ভাঙে ম্যানচেস্টার সিটির। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই সিটির হয়ে ব্যবধান কমান জ্যাক গ্রেয়ালিশ। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে দ্বিতীয়বার গোল পায় সিটি। ব্যবধান আরও কমান বার্নার্ডো সিলভা। সমতায় ফিরতে মরিয়া হয়ে ওঠা সিটি ইনজুরি টাইমের মিনিট তিনেক খানেকটা উত্তেজনা উপহার দিয়েছে। সমতায় ফিরতে গিয়ে সিটি যে শেষ দিকে আরেকটা গোল হজম করেনি এটা তাদের সৌভাগ্য।

ম্যাচে সিটির গোলপোস্টের নিচে অবশ্য ছিলেন না সেরা গোলরক্ষক এডারসন। ব্রাজিলিয়ান তারকার জায়গায় সিটির তিন কাঠির নিচে দাঁড়ালেন জ্যাক স্টিফেন। তার ভুলেই দ্বিতীয় গোলটা হজম করে পেপ গার্দিওলার দল। সুযোগ পেয়ে প্রথম গোলটা হাতছাড়া করেননি মানে। টিভি ক্যামেরায় তখন বারবার খুঁজে নিচ্ছিল ডাগ আউটে বসে থাকা এডারসনকে। তার বিশ্রামটা যেন সর্বনাশই করে দিল ম্যানচেস্টার জায়ান্টদের।

এই মৌসুমে ইউরোপের একমাত্র ক্লাব হিসেবে সম্ভাব্য সবকটি শিরোপা জয়ের সুযোগ আছে কেবল লিভারপুলের। আজ সিটিকে হারিয়ে ট্রেবল জয়ের স্বপ্নটা বাঁচিয়ে রাখল অল রেডরা। আগামী ১৪ মে একই ভেন্যুতে এফএ কাপের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে। সেই ম্যাচে লিভারপুল কাকে পাবে ক্রিস্টাল প্যালেস নাকি চেলসিকে? উত্তরটা মিলে যাবে আগামীকাল রাতেই। রোববারই যে প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হবে দল দুটি।