advertisement
আপনি পড়ছেন

দলের সবচেয়ে বড় তারকা হওয়ায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের টানা ব্যর্থতার দায়ের কিছু অংশ পড়েছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর কাঁধে। সেই সাথে ব্যক্তিগত সমস্যাতেও জর্জরিত পর্তুগীজ যুবরাজ। কয়েকদিন আগে প্রতিপক্ষ সমর্থকের ফোন ভেঙে সমালোচিত হয়েছেন। এসব সংকট থেকে বের হলেন নিজস্ব ভঙ্গিতেই। করলেন দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক। তাতেই ক্লাব ক্যারিয়ারে এক ম্যাচে তিন গোলের ফিফটি ছুঁয়েছেন রোনালদো।

ronaldo celebration 2সতীর্থদের সাথে রোনালদোর বাঁধভাঙা উল্লাস

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে গতকাল নরউইচ সিটিকে ৩-২ ব্যবধানে পরাজিত করেছে ম্যানইউ। এ নিয়ে সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে সবশেষ আট ম্যাচের মধ্যে দ্বিতীয় জয়ের দেখা পেয়েছে রালফ র‌্যাগনিকের দল। ঘরের মাঠ ওল্ড ট্রাফোর্ডে দলের হয়ে তিনটি গোলই করেছেন স্পেশাল ওয়ান রোনালদো।

লিগ কাপ, এফএ কাপ থেকে আগেই বাদ পড়েছে ম্যানইউ। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগের রাউন্ড অব সিক্সটিন থেকে। অন্যদিকে লিগ শিরোপা জয়ের স্বপ্নও শেষ হয়েছে অনেক আগেই। সেরা চারে থেকে মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের মঞ্চের আগামী আসরে জায়গা করে নেওয়াই এখন রেডডেভিলদের একমাত্র লক্ষ্য।

ronaldo free kickফ্রি কিক নিচ্ছেন সিআরসেভেন

সে মিশনে নরউইচের বিপক্ষে শুরুটা দুর্দান্ত করেছিল ম্যানইউ। শুরুতে দুই গোলে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। ডিন স্মিথের দল ম্যাচে ফেরায় ফের পয়েন্ট হারানোর শঙ্কায় পড়ে যায় ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। কিন্তু তাদের ছিলেন একজন রোনালদো। সব শঙ্কা দূর করে দলকে জয় উপহার দিয়েছেন সাবেক জুভেন্টাস ফরোয়ার্ড।

সপ্তম মিনিটে সতীর্থ অ্যান্থনি ইলাঙ্গার অ্যাসিস্ট থেকে ম্যাচে প্রথমবারের মতো গোলমুখ খোলেন রোনালদো। ৩২ মিনিটে পান দ্বিতীয় গোলের দেখা। ডিফেন্ডার অ্যালেক্স তেলেসের কর্ণার থেকে পাওয়া বলে রোনালদোর ট্রেডমার্ক হেড জালে জড়ায়। দুই গোলে এগিয়ে যাওয়া ম্যানইউর বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ান কিয়েরান ডাওয়েল এবং টিমু পুক্তি। এই দুজন যথাক্রমে প্রথমার্ধের যোগ করা সময় এবং ৫২ মিনিটে লক্ষ্যভেদ করে ম্যাচ জমিয়ে তোলেন।

অবশেষে ৭৬ মিনিটে আসে মাহেন্দ্রক্ষণ। ডি বক্সের কিছুটা বাইরে ইলাঙ্গা ফাউলের শিকার হলে ফ্রি কিক পায় ম্যানইউ। ৩০ গজ দূর থেকে রোনালদোর নেওয়া বুলেট গতির শট ঠিকানা খুঁজে নেয়। তার আগে ফেরানোর চেষ্টা করেছিলেন নরউইচের গোলরক্ষক টিম ক্রুল। কিন্তু পারেননি।

এটা ক্লাব এবং জাতীয় দল মিলিয়ে রোনালদোর ৬০তম হ্যাটট্রিক। আর চলতি মৌসুমে ম্যানইউর হয়ে ৩৭ বছর বয়সী ফুটবলারের দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক। এর আগে প্রথম মেয়াদে ক্লাবটির হয়ে করেছিলেন একটি হ্যাটট্রিক। ক্লাব ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বেশি ৪৪ হ্যাটট্রিক করেছেন রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে। বাকি তিনটা জুভেন্টাসের জার্সিতে।