advertisement
আপনি পড়ছেন

স্প্যানিশ লা লিগার ম্যাচটা দুই ভাগে ভাগ করা যায়। প্রথমার্ধে দাপট দেখিয়েছে সেভিয়া। দ্বিতীয়ার্ধে একচ্ছত্র আধিপত্য রিয়াল মাদ্রিদের। দুই অর্ধের এই লড়াইটা উপহার দিয়েছে ম্যাচটা দুই ভাগে ভাগ করা যায়। প্রথমার্ধে দাপট দেখিয়েছে সেভিয়া। দ্বিতীয়ার্ধে একচ্ছত্র আধিপত্য রিয়াল মাদ্রিদের। দুই অর্ধের এই লড়াইটা উপহার দিয়েছে থ্রিলার। পাঁচ গোলের থ্রিলার ম্যাচে সেভিয়াকে ৩-২ ব্যবধানে হারিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। দুই গোলে পিছিয়ে থেকেও কার্লো আনচেলত্তির দল যেভাবে প্রব্যাবর্তন করেছে সেটার বিশেষণ এক কথায় হতে পারে দুর্দান্ত।

real madrid celebration 2022

সেভিয়ার মাঠে প্রথমার্ধে রিয়াল মাদ্রিদকে ঠিক অচেনা লাগছিল। সুযোগ কাজে লাগায় স্বাগতিক শিবির। ডিফেন্ডারদের ভুলে চার মিনিটে লস ব্ল্যাঙ্কোসরা হজম করে দুই গোল। হারের শঙ্কায় পড়ে রিয়াল। ইভান রাকিটিচের গোলে লিড নেওয়ার পর এরিক লামেলার গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করে সেভিয়া। ২৫ মিনিটে ২-০ গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা।

বিরতির পর পাল্টে যায় রিয়াল মাদ্রিদের চেহারা। সেভিয়ার ওপর আহত বাঘের মতো ঝাঁপিয়ে পড়ে আনচেলত্তির দল। ৫০ মিনিটে ব্যবধান কমান ব্রাজিলিয়ান তারকা রদ্রিগো। ৮২ মিনিটে রিয়ালকে সমতায় ফেরান ন্যাচো ফার্নান্দেজ। যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে মাহেন্দ্রক্ষণ এনে দেন করিম বেনজেমা; জয়সূচক গোল করে রিয়ালকে উচ্ছ্বাসে ভাসান ফরাসি স্ট্রাইকার।

গত বছরের নভেম্বরে ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে লিগের প্রথম লেগে শুরুতে পিছিয়ে থেকেও সেভিয়ার বিপক্ষে ২-১ গোলে জেতে রিয়াল মাদ্রিদ। সেই ম্যাচে গোল করেছিলেন বেনজেমা। গতকাল আরও একবার দল প্রত্যাবর্তন করল রিয়াল। এবারও ত্রাতার ভূমিকায় ফরাসি ফরওয়ার্ড। দলকে জিতিয়ে দেড় ঘণ্টার যেন শাপমোচন করলেন বেনজেমা। করেন লা লিগার এই মৌসুমের ২৫তম এবং সব মিলিয়ে ৩৯তম গোল।

রিয়াল সমতায় ফিরতে পারতো ৭৪ মিনিটে। লুকাস ভাসকুয়েজের ক্রসে হেড করেন লুকা মডরিচ। বল পেয়ে যান ফাঁকায় দাঁড়িয়ে থাকা ভিনিচিয়াস জুনিয়রের পায়ে। ব্রাজিলিয়ান ফরওয়ার্ড খুঁজে নেন জালের ঠিকানা। কিন্তু রেফারি বাজান হ্যান্ড বলের বাঁশি। ম্যাচ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। দীর্ঘ সময়ে ভিএআরের সহায়তা নিয়ে রিয়ালের গোলটা বাতিল করে দেন রেফারি।

লা লিগার এই মৌসুমে ঘরের মাঠে এটাই প্রথম হার সেভিয়ার। এই হারের পর ৩২ ম্যাচে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তিনে থাকল তারা। সেভিয়ার সমান পয়েন্ট থাকলেও গোলগড়ে পিছিয়ে চারে আছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। ৬০ পয়েন্ট নিয়ে গোলগড়ে এগিয়ে বার্সেলোনা আছে তালিকার দ্বিতীয়তে। বার্সার সঙ্গে শীর্ষে থাকা রিয়ালের ব্যবধান ১৫। অর্থাৎ রিয়াল পরের ম্যাচ জিতলেই লিগ শিরোপা নিশ্চিত হয়ে যাবে তাদের।