advertisement
আপনি দেখছেন

অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়ার খেলাধুলাবিষয়ক মন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন যে, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে সর্বোচ্চ ৩০ হাজার দর্শক অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

australia to allow 30k spectators in ao

তিনি জানিয়েছেন, প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৩০ হাজার দর্শক খেলা দেখতে পারবেন। এই ৩০ হাজার দর্শককে দিন ও রাত— দুই ভাগে ভাগ হয়ে খেলা দেখতে হবে।

এই সিদ্ধান্ত প্রথম আট দিনের জন্য কার্যকর থাকবে। এরপর কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে প্রতি ম্যাচে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার দর্শক খেলা দেখতে পারবেন, যা গত আসরের তুলনায় অর্ধেক। ফেব্রুয়ারির ৮ থেকে ২১ তারিখে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত হবে।

মার্টিন পাকুলা সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, “মোট ১৪ দিনে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন দেখতে ৩৯০,০০০ দর্শক। যা গত কয়েক বছরের তুলনায় ৫০ শতাংশেরও কম।”

তিনি আরো বলেন, “রড ল্যাভার এরেনার পরিবেশ খুব ভালো হবে বলে আমাদের ধারণা। যা আগের কোনো সময়ের তুলনায় মোটেও খারাপ নয়। এটা ঠিক এবার আগের মতো হবে না। কিন্তু একই সাথে এটাও সত্য যে এটি হতে যাচ্ছে অনেক দর্শক নিয়ে প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক ইভেন্ট যা অনেক মাস ধরে পৃথিবী দেখেনি।”

এরই মধ্যে এই টেনিস আসরে অংশগ্রহণকারি খেলোয়াড়রা অস্ট্রেলিয়ায় আসার পর তাদের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারিন্টিন শেষ করছেন।

জানুয়ারির শুরুর দিকে বছরের প্রথম গ্রান্ড স্লামে অংশ নিতে অন্তত ১৭০০ বিদেশি খেলোয়াড়, স্টাফ বিশেষ বিমানে অস্ট্রেলিয়ায় এসেছেন।

বেশির ভাগ খেলোয়াড়কে মাত্র পাঁচ ঘণ্টার জন্য হোটেলের বাইরের কোর্টে অনুশীলনের সুযোগ দেওয়া হয়েছিলো। কিন্তু ৭২ জন খেলোয়াড়কে সম্পূর্ণভাবে হোটেলে থাকতে হয়েছে। তারা অনুশীলনেরও সুযোগ পাননি, কারণ তারা যে ফ্লাইটে এসেছেন তাতে কোভিড আক্রান্তদের পাওয়া গেছে।

গত বছর বিশ্বের সবচেয়ে কড়া লকডাউনে পড়েছিলো মেলবোর্ন। অনেক স্থানীয় লোক আশঙ্কা করছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের মাধ্যমে অঞ্চলটিতে আবার করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে।