advertisement
আপনি পড়ছেন

ইউক্রেনে হামলার জেরে রাশিয়া-বেলারুশের খেলোয়াড়দের নিষিদ্ধ করেছিল উইম্বলডন। এবাই সেই উইম্বলডনকেই দুধভাত বানিয়ে দিল টেনিসের শীর্ষ সংস্থা দ্য অ্যাসোসিয়েশন অব টেনিস প্রফেশনাল বা এটিপি। জানিয়ে দিয়েছে, এই প্রতিযোগিতায় খেলে কোনো র‌্যাঙ্কিং পয়েন্ট পাবেন না নোভক জকোভিচ, রাফায়েল নাদালরা। খবর দ্য গার্ডিয়ান।

wimbledonউইম্বলডন

ইউক্রেনে হামলা চালিয়েছেন ভ্লাদিমির পুতিন। তাতে অন্যদের সাথে ভুগতে হয়েছে রুশ খেলোয়াড়দের। একই সমস্যায় পড়েছে রাশিয়ার মিত্র বেলারুশের খেলোয়াড়রাও। বিভিন্ন সংস্থা, দেশ নিষিদ্ধ করেছে এই দুই দেশের খেলোয়ারদের। তবে এবারই প্রথমবারের মতো সিদ্ধান্ত পক্ষে গেল তাদের।

এটিপি জানিয়েছে, কোনো কোনো দেশের খেলোয়াড়দের এই টুর্নামেন্টের বাইরে রাখায় প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে কোনো পয়েন্ট পাবে না টেনিস খেলোয়াড়রা। এই ঘোষণার পর খাতা-কলমে ঐতিহ্যবাহী প্রতিযোগিতাটি গুরুত্বহীন হয়ে গেল।

nadal djokovic in wimbledonরাফায়েল নাদাল ও নোভাক জোকোভিচ

এটিপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যে কোনো দেশের খেলোয়াড় নিজের যোগ্যতা দিয়েই খেলার সুযোগ অর্জন করবে, আমাদের প্রতিযোগিতার এটাই মূল উদ্দেশ্য। রাশিয়া ও বেলারুশের খেলোয়াড়দের খেলতে না দেওয়ার যে সিদ্ধান্ত উইম্বলডন নিয়েছে, সেটা এটিপির ক্রমতালিকার নিয়মবিরুদ্ধ। তাই আমরা উইম্বলডন-২০২২ থেকে পয়েন্ট সরিয়ে নিচ্ছি।

উইম্বলডনের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে এটিপি আরো জানায়, খেলোয়াড়দের অগ্রাধিকার দিয়েই আমাদের সব নিয়ম। ৩০টি দেশে যে টুর্নামেন্ট, সেখানে এক-দুটি দেশের জন্য আলাদা নিয়ম মানা যায় না।

গত এপ্রিল মাসে উইম্বলডন কর্তৃপক্ষ ঘোষণা দিয়েছিল, এই প্রতিযোগিতায় রাশিয়া ও বেলারুশের খেলোয়াড়দের খেলতে দেওয়া হবে না। রাফায়েল নাদাল, নোভাক জোকোভিচের মতো খেলোয়াড়রা উইম্বলডনের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছিলেন। এবার বড় খেসারত দিতে হল উইম্বলডনকে।