advertisement
আপনি দেখছেন

বয়স মাত্র ২১ বছর, এর মধ্যেই এক ‘অসাধ্য সাধ্য’ করেছেন এক তরুণী। যা অনেকের ক্ষেত্রেই কল্পনা করাও অসম্ভব। মার্কিন এই তরুণীর নাম লেক্সি অ্যালফর্ড। এই অল্প বয়সেই তিনি বিশ্বের অনেকগুলো দেশ ঘুরে বেরিয়েছেন। জাতিসংঘের সদস্য রাষ্ট্র ১৯৩টি। আর অ্যালফর্ডের ঘোরার তালিকায় রয়েছে ১৯৬টি দেশ। যে তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশের নামও। এর মধ্য দিয়ে সবচেয়ে কম বয়সে বেশি দেশ ঘোরার বিশ্ব রেকর্ডটি দখলে নিয়েছেন তিনি।

lexie alfordবিশ্বের বিভিন্ন দেশে গিয়ে লেক্সি জেনেছেন তাদের পরিবেশ

মার্কিন নাগরিক লেক্সি জানান, ২০১৬ সালে তিনি ঠিক করেন বিশ্বের সবগুলো দেশ ঘুরে দেখতে হবে। সে সময় তার বয়স ছিল ১৮। অবশ্য চিন্তারও তেমন কোনো কারণ ছিল না। কারণ ততদিনে ৭২টি দেশের আলো-বাতাস উপভোগ করে ফেলেছেন তিনি। পরের তিন বছরে বাকি দেশগুলো ঘুরে শেষ করেন।

লেক্সির বাবা-মা ক্যালিফোর্নিয়ায় একটি ট্র্যাভেল এজেন্সি চালান। সেই সূত্রে বিভিন্ন দেশ সম্পর্কে আগ্রহ জন্মে। শুরুটাও হয় সেখান থেকেই। লেক্সি জানান, বাবা-মায়ের কাজের সুবাদে তাদের সাথেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে লম্বা সময়ের জন্য তিনি অবস্থান করতেন। লেখাপড়াও হতো তাই সেভাবেই। ১৮ বছর বয়সে একটু গুছিয়ে নেয়ার সময়ই তার ভ্রমণের তালিকায় জমা পড়ে যায় বিশ্বের প্রধান প্রধান সব দর্শনীয় জায়গার নাম। এরপর থেকে শুরু করেন একা ঘোরা।

lexie alford in bangladeshবাংলাদেশেও এসেছিলেন লেক্সি

স্বভাবতই প্রশ্ন জাগে, দুনিয়া ঘুরে বেড়ানোর এসব খরচ এসেছে কোত্থেকে। লেক্সি জানান, বুঝতে পারার পর থেকে নিজের অর্থেই ঘুরেছি এসব জায়গা। সরল স্বীকারোক্তিতে তিনি বলেন, যখন যেখানে যেমন কাজ পেয়েছি, করেছি। সেই টাকায় আবার আরেকটি দেশ ঘোরার পরিকল্পনা করেছি। এভাবেই হয়ে গেছে বিশ্ব ঘোরা। হ্যাঁ, উত্তর কোরিয়াও তার ভ্রমণ তালিকা থেকে বাদ পড়েনি। বাংলাদেশেও এসেছিলেন তিনি। 

টাইমস ট্রাভেলস সূত্রে জানা যায়, লেক্সির বয়স এখন অবশ্য ২৩ বছর চলছে। মানে দুই বছর আগেরই এসব ঘোরাঘুরি শেষ করে রেকর্ডটা নিজের করে নিয়েছিলেন তিনি।