advertisement
আপনি পড়ছেন

ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ১৫৬ জন সংসদ সদস্য মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধদের হাতে দেশটিতে চলমান রোহিঙ্গা গণহত্যা ও নির্যাতনের বন্ধে জরুরি পদক্ষেপ নিতে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসনের প্রতি আহ্বান জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন।

british house of commons 2017

চিঠিতে তারা মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেয়া স্থগিত করারও দাবি তুলেছেন। এর আগে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বার্মার ডি ফ্যাক্টো নেতা অং সান সু চিকে সতর্ক করে বলেছিলেন, ‘জাতিগত সহিংসতায় সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের নিপীড়নের ঘটনা দেশটির খ্যাতিকে কলঙ্কিত করেছে।' 

পার্লামেন্ট সদস্যরা জনসনের এই বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়ে অনুরোধ করেছেন ব্রিটিশ সরকার যেন বার্মিজ সামরিক বাহিনীকে দেয়া প্রশিক্ষণ স্থগিত করে দেয়। উল্লেখ্য, গত বছর বার্মিজ সামরিক বাহিনীর পেছনে প্রশিক্ষণ ব্যয় বাবদ যুক্তরাজ্য ৩ লক্ষ ০৫ হাজার পাউন্ড খরচ করেছে।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ও লেবার পার্টির এমপি রুশনারা আলী মিয়ানমারের গণতন্ত্রের জন্য গঠিত সর্বদলীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান। তাঁর নেতৃত্বে পার্লামেন্ট সদস্যরা লিখিত চিঠিতে বরিস জনসনকে বলেন, ‘জাতিসংঘ, মানবাধিকার সংগঠন এবং রোহিঙ্গা সংগঠনসমূহের রিপোর্টের ভিত্তিতে আমরা মিয়ানমারের ইতিহাসের জগন্যতম মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি প্রত্যক্ষ করছি। চার শতাধিক রোহিঙ্গাকে হত্যা করা হয়েছে বলে মিয়ানমার সরকার স্বীকার করেছে। কিন্তু নির্ভরযোগ্য রোহিঙ্গা সূত্রগুলোর মতে এই সংখ্যা ২ হাজার থেকে ৩ হাজারের মধ্যে।’

চিঠিতে বলা হয়, ‘প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনা অনুযায়ী সেখানে বেসামরিক নাগরিকদের ওপর সেনারা নির্বিচারে গুলী চালিয়ে হত্যা করছে, তাদেরকে সারিবদ্ধভাবে শুয়ে থাকতে বাধ্য করার পর মাথার পিছনে গুলি করে হত্যা করা হচ্ছে। ঘরের ভিতর আটকে রেখে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হচ্ছে। তারা শিশুদেরকেও ইচ্ছাকৃতভাবে গুলি করে হত্যা করছে। তাই বার্মিজ সামরিক বাহিনীর প্রতি সরকারের বর্তমান দৃষ্টিভঙ্গি অবশ্যই পর্যালোচনা করা উচিত।’