আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 57 মিনিট আগে

পাকিস্তানে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতকে জরুরি ভিত্তিতে দেশে ডেকে পাঠিয়েছে আফগানিস্তান। সেই সঙ্গে কাবুলে দায়িত্বরত পাক উপ-রাষ্ট্রদূতকেও তলব করা হয়েছে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কাবুলে একটি অন্তর্বর্তী সরকার গঠনের আহ্বান জানানোর পরই এমন ব্যবস্থা নিলো আফগান সরকার।

imran khan 19

সোমবার ইমরান খান সাংবাদিকদের বলেন, ‘তালেবানরা আশরাফ গনির সরকারের সঙ্গে সংলাপে বসতে রাজি নয়। তাই দেশটিতে একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠিত হলে তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে চলমান শান্তি প্রক্রিয়ার পথ আরো মসৃণ হবে।’

আশরাফ গনির সরকার আফগান শান্তি প্রক্রিয়ায় ‘প্রতিবন্ধকতা’ তৈরি করছে উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, ‘আফগান সরকারের কারণে তালেবানদের সঙ্গে পূর্বনির্ধারিত একটি বৈঠক বাতিল করতে হয়েছে। বৈঠক বাতিল করাটা কোনো সমাধান নয়।’

পাক প্রধানমন্ত্রীর এ মন্তব্য পাকিস্তানের দৈনিক ‘দি এক্সপ্রেস ট্রিবিউন’সহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশের পর ব্যপক প্রক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এ বক্তব্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে আফগানিস্তান সরকার।

এক প্রতিক্রিয়ায় দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সিবগাতুল্লাহ আহমাদি বলেন, ‘ইমরান খানের মন্তব্যটি ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’। এটি আফগানিস্তানের সার্বভৌমত্ব ও জনগণের আকাঙ্ক্ষার প্রতি অসম্মান। এর মাধ্যমে পাকিস্তানের হস্তক্ষেপকামী নীতি প্রকাশিত হয়েছে।’

এ সময় তিনি জানান, ইমরান খানের বক্তব্যের প্রতিবাদে সেদেশে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতকে দেশে ডেকে পাঠানো হয়েছে। তাছাড়া কাবুলে নিযুক্ত পাক উপ-রাষ্ট্রদূতকেও তলব করা হয়েছে।