advertisement
আপনি দেখছেন

গতকাল দক্ষিণ তাইওয়ানের তাইনান শহরে ৬ দশমিক ৪ মাত্রার একটি শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানার ফলে শহরটির একটি ১৭তলা ভবন বিধ্বস্ত হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৭তলা ওই আবাসিক ভবনের ধ্বংসস্তুপের নিচে ১৩২ জন আটকা পড়ে আছে।

taiwan eartquik

তবে ইতোমধ্যে আটকা পড়া ওই ১৩২ জনের মধ্যে ২৯ জনের কাছে পৌঁছানো সম্ভব বলে উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন। বাকিদের কাছে যাওয়া সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছে উদ্ধারকর্মীরা।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ধ্বংসস্তূপ থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ৩৫০ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে এবং আহত হয়েছেন প্রায় পাঁচশো জনের বেশি। উদ্ধার হওয়া মানুষের মধ্যে এ পর্যন্ত প্রায় ৯২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে খবর প্রকাশ করেছে দেশটির গণমাধ্যম।

তাইওয়ানের ভয়াবহ এই ভূমিকম্প সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানিয়েছে, এই ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ছিল দক্ষিণাঞ্চলীয় তাইনান শহর থেকে ৪৩ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে ভূপৃষ্ঠের ২৩ কিলোমিটার গভীরে। তবে ছয় দশমিক চার মাত্রার ওই ভূমিকম্পের পর দেশটিতে আবারো কয়েকবার ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে বলে জানিয়েছে তাইওয়ানের কেন্দ্রীয় আবহাওয়া ব্যুরো।

আটকে পড়াদের সংখ্যা সম্পর্কে তাইনানের মেয়র উইলিয়াম লাই বলেন, ধারণা করা হচ্ছে ভবনের ধ্বংসস্তূপের নিচে ১৩২ জন বাসিন্দা আটকা পড়ে আছে। কিন্তু সঠিক সংখ্যাটি এখনো বের করা সম্ভব হয়নি। তবে আটকে পড়াদের অনেকেই গভীরে চাপা পড়ার ফলে তাদের উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালেও দেশটিতে ভয়াবহ ভূমিকম্প আঘাত হেনেছিল। তখন ৬ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্পে চারজনের মৃত্যু ও ব্যাপক ভূমিধস হয়। আর ১৯৯৯ সালে ৭ দশমিক ৬ মাত্রার ভূমিকম্পে দেশটিতে ২ হাজার ৩০০ জন প্রাণ হারিয়েছিল।

 
আপনি আরো পড়তে পারেন 

যুক্তরাজ্যে আজ অমুসলিমদের জন্যে মসজিদের দুয়ার খোলা

জিকা আতঙ্ক উপেক্ষা করে ব্রাজিলে কার্নিভাল

নিষেধ সত্ত্বেও ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করলো উত্তর কোরিয়া

sheikh mujib 2020