advertisement
আপনি দেখছেন

জীবিকার তাগিদে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে কাজ করছেন কয়েক লক্ষ ভারতীয়। প্রতিবছরই এ সংখ্যা বাড়ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। শুক্রবার এ বিষয়ে লোকসভায় একটি পরিসংখ্যান তুলে ধরেছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এ পরিসংখ্যানের তথ্যানুযায়ী উপসাগরীয় অঞ্চলের সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহারাইন, ওমান, কুয়েত ও কাতার এ ৬টি দেশে ভারতীয়দের মৃত্যুর হার ও সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে বেশি। এ পরিসংখানের তথ্যমতে প্রতিদিনই গড়ে প্রায় ১৫ জন করে ভারতীয় এসব দেশে মারা যাচ্ছেন। 

imigrant worker india gulfকাগজপত্র যাচাইয়ের জন্য তল্লাশির নামে প্রায়ই হেনস্তায় পড়তে হয় প্রবাসী শ্রমিকদের

গতকাল লোকসভায় উপসাগরীয় দেশগুলোতে ভারতীয়দের মৃত্যুর পরিসংখ্যান প্রসঙ্গে বিদেশ প্রতিমন্ত্রী ভি মুরলীধরন জানান, ২০১৪ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত পাঁচ বছরে এসব দেশে ৩৩ হাজার ৯৮৮ জন ভারতীয় মারা যান। ২০১৯ সালে মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার অতিক্রম করেছে। এই মৃত্যুর পেছনে থাকা কারণগুলোর মধ্যে অন্যতম কর্মস্থলের প্রতিকূল পরিস্থিতি। এর সাথে যুক্ত হয় সঠিক সময় বেতন না পাওয়া, দেনার দায়, কাজের অতিরিক্ত চাপ, এমনকি মানসিক চাপও।

রিপোর্টে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, উপসাগরীয় এ দেশগুলোতে যে অঞ্চলের ভারতীয়রা মারা যাচ্ছেন তাদের বেশিরভাগই তেলেঙ্গানাবাসী। গত পাঁচ বছরে তেলেঙ্গানার প্রায় ১২ হাজার মানুষ মারা গিয়েছেন বলে দাবি করেন তেলেঙ্গানা রাজ্যের প্রবাসী শাখার কর্মকর্তা চিট্টি বাবু।

উপসাগরীয় অঞ্চলে কাজের প্রতিকূল পরিবেশ নিয়ে অনেক রকমের অভিযোগ রয়েছে। এ প্রসঙ্গে অক্টোবর মাসে মন্ত্রণালয়ে কাছে ১৫ হাজারের বেশি অভিযোগ জমা পড়েছে। যার একটি বড় অংশই এজেন্টদের দ্বারা প্রতারিত হওয়ার অভিযোগ। বেতন না পাওয়ার অভিযোগও আছে। কেউ কেউ আবার অভিযোগ জানান তাদের দিয়ে ওভারটাইম কাজ করিয়েও সে অনুযায়ী বেতন দেয়া হচ্ছেনা। অনেকে আবার কাজ শেষে দেশে ফেরার জন্য ভিসা জটিলতায় পড়ছেন বলেও জানানো হয়েছে রিপোর্টে।

বিষয়টি বেশ উদ্বেগের তা ভারত সরকার টের পেয়েছে। তবে এই বিষয়ে সরকার থেকে কোন পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে কী না সে ব্যাপারে স্পষ্টভাবে কিছু জানানো হয়নি।