advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 14 মিনিট আগে

ভারতের বিতর্কিত মুসলিমবিরোধী নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি আইনে পরিণত করেছে বিজেপি সরকার। বুধবার রাতে পাস হওয়া বিলটির প্রতিবাদে টানা পঞ্চমদিনের মত বিক্ষোভ করেছে আসাম ও পশ্চিমবঙ্গসহ দেশটির উত্তরপূর্বের বিভিন্ন রাজ্যের মানুষ। এতে রোববার পর্যন্ত পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ ও বিক্ষোভকারীদের আগুনে ছয়জন নিহত হয়েছেন।

nrc asam protest4বিক্ষেভে উত্তাল ভারতের বিভিন্ন রাজ্য

স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ফরাসি বার্তাসংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, নিহতদের মধ্যে চারজন পুলিশের গুলিতে, বিক্ষোভকারীদের আগুনে একজন এবং গণপিটুনিতে একজনের প্রাণ গেছে। এ নিয়ে রাজ্যগুলোতে ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে। এছাড়া পশ্চিমবঙ্গের কিছু অঞ্চলে ইন্টারনেট ও মোবাইল সংযোগ বিচ্ছিন্ন এবং আসামে কারফিউ জারি করা হয়েছে।

রোববার নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা করে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমে আসে। ট্রেন, বাস, ট্রাক ও টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে রাখেন তারা। এ সময় বিক্ষোভকারীরা ‘আসাম দীর্ঘজীবী হোক’, ‘নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন চাই না’ সহ বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিতে থাকেন।

টানা ধর্মঘটের ফলে রাজ্যগুলোতে তেল এবং গ্যাস উৎপাদন স্থবির হয়ে পড়েছে।

এদিকে, বিক্ষোভকারীদের শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তিনি বলেন, এ বিলটির মাধ্যমে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের স্থানীয় সংস্কৃতি হুমকির মুখে পড়বে না। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে নির্যাতিতদের রক্ষা করার সম্পূর্ণ দায়িত্ব সরকারের।

আইনটি নিয়ে সমস্যার কথা আলোচনা করতে ইতোমধ্যে তিনি মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছেন। এ সময় তিনি জানিয়েছেন, প্রয়োজনে আইনে কিছুটা পরিবর্তন আসতে পারে। এ নিয়ে ‘ভয়ের কিছুই নেই।’

nrc asam protest3বিক্ষেভে উত্তাল ভারতের বিভিন্ন রাজ্য

প্রসঙ্গত, ১৯৫৫ সালে পাশ হওয়া নাগরিকত্ব আইনে উল্লেখ আছে, অন্য দেশ থেকে ভারতে আসা কেউ যদি নাগরিকত্ব চায় সেক্ষেত্রে তাকে কমপক্ষে ১১ বছর এ দেশে বসবাস করতে হবে। পাশাপাশি এর পক্ষে যথেষ্ট প্রমাণ ও নথিপত্র উপস্থাপন করতে হবে।

কিন্তু নতুন করে সংশোধন হওয়া এ বিলটিতে বলা হয়েছে, ভারতে টানা ৫ বছর ধরে বসবাস করা অমুসলিমরা নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য অবেদন করতে পারবেন।

sheikh mujib 2020