advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 48 মিনিট আগে

ভারতে নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে গোটা দেশে যখন ক্ষোভের আগুন জ্বলছে, তখন বুধবার বরফঝরা শীতের বিকেলে কাশ্মিরের শ্রীনগরের জামিয়া মসজিদের দরজা খুলে দিল প্রশাসন।

jamia mosque kashmir

কাশ্মির থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করা হয়েছিল প্রত্যাহার হয়েছিল প্রায় সাড়ে চার মাস আগে। স্থানীয় মানুষের বিক্ষোভ প্রশমিত করতে ও নিরাপত্তার কারণে দেখিয়ে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে জামিয়া মসজিদের দরজা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছিল সরকার। তা নিয়েও তখন অসন্তোষ কম ছিল না।

তবে সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে এখন দাবি করা হচ্ছে, কাশ্মির তথা উপত্যকার পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। সেই কারণেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। সরকার চায় মানুষ উপত্যকায় সাধারণ জীবনযাপন করুক। সেখানে অর্থনৈতিক কার্যকলাপ গতি পাক। ধর্মাচরণেও যেন কোনও বাধা না থাকে।

ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, অবশ্য সরকারের এই পদক্ষেপকে অন্যভাবে দেখছেন পর্যবেক্ষকরা। তাদের মতে, শুধু কাশ্মির নয়, গোটা দেশের সংখ্যালঘু ও উদারপন্থীদের বার্তা দিতে জামিয়ার দরজা খুলে দিল সরকার। নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে যখন বিভাজনের রাজনীতির অভিযোগ উঠছে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে তখন হয়তো কেন্দ্র দেখাতে চাইছে মুসলমানদের বিরুদ্ধে নয় তারা।

শ্রীনগরের এই মসজিদ নির্মিত হয়েছিল ত্রয়োদশ শতাব্দীতে। স্থানীয় মানুষের কথায়, স্বাধীনোত্তর সময়ে এত দীর্ঘ সময় কখনওই বন্ধ থাকেনি জামিয়া মসজিদ। সংবাদ সংস্থা এএফপি এ ব্যাপারে স্থানীয় লোকজনের প্রতিক্রিয়াও নিয়েছে।

শ্রীনগরের এক বাসিন্দার কথায়, “বাড়িতে বসেছিলাম। হঠাৎ শুনি মসজিদ থেকে আজানের শব্দ ভেসে আসছে। অনেকদিন পর যেন প্রাণভরে নিঃশ্বাস নিলাম।’’

sheikh mujib 2020