advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতে বিতর্কিত মুসলিমবিদ্বেষী নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে ভারতজুড়ে বিক্ষোভের আগুন জ্বলছে। সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে ছাত্রসমাজ, সবাই নেমে এসেছে রাজপথে। প্রতিবাদের আগুনে পানি ঢালতে দিল্লির জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকে ছাত্রছাত্রীদের ওপর লাঠিচার্জ করে পুলিশ। কিন্তু তাতে হয়েছে বিপরীত। ওই ঘৃণ্য আক্রমণে ক্ষেপে উঠেছে দেশবাসী। প্রতিবাদ হচ্ছে সবখানে। এবার তো নিজের গায়ে আগুন দিয়ে প্রতিবাদ জানালেন এক যুবক।

india unrest

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে দেশটির রাজধানী দিল্লির ইন্ডিয়া গেটের সামনে। নাগরিকত্ব আইন বাতিলের দাবিতে কার্তিক মেহের নামের ২৫ বছরের এক যুবক নিজের শরীরের আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। ভারতে বিক্ষোভের নানান ধরণ দেখা গেলেও গায়ে আগুন দেয়ার ঘটনা এটাই প্রথম।

পুলিশের বরাত দিয়ে 'এই সময়' জানায়, বুধবার সন্ধ্যায় ওই যুবক ইন্ডিয়া গেটের সামনে এসে নিজের গায়ে আগুন দিলে দ্রুত তাকে রাম মনোহর লোহিয়া হাসপাতালে নেয়া হয়।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ওই যুবকের শরীরের ৯০ শতাংশই পুড়ে গেছে। তার বাঁচার সম্ভাবনা একেবারেই নেই, তা সত্ত্বেও সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ওড়িশার বাসিন্দা মেহার নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা করার সময় নিজের গায়ে আগুন দেন। তবে পুলিশের দাবি, নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে কোনো স্লোগান দেননি ওই যুবক।

প্রসঙ্গত, ১৯৫৫ সালে পাশ হওয়া নাগরিকত্ব আইনে উল্লেখ ছিল, অন্য দেশ থেকে ভারতে আসা কেউ যদি নাগরিকত্ব চায় সেক্ষেত্রে তাকে কমপক্ষে ১১ বছর এ দেশে বসবাস করতে হবে। সেইসঙ্গে এর পক্ষে যথেষ্ট প্রমাণ ও নথিপত্র উপস্থাপন করতে হবে। কিন্তু সংশোধিত নতুন আইনে ভারতে টানা ৫ বছর ধরে থাকা অমুসলিমরা নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য অবেদন করতে পারবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।