advertisement
আপনি দেখছেন

ইসলাম নিয়ে কটূক্তি করার দায়ে পাকিস্তানের এক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষককে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন দেশটির আদালত। দীর্ঘ বিচার প্রক্রিয়া শেষে শনিবার দেশটির মুলতানের একটি আদালত এ রায় দেন। খবর আল-জাজিরা।

university teacher junaid

মৃত্যুদণ্ডের আদেশপ্রাপ্ত জুনায়েদ হাফিজ দেশটির মুলতানের বাহাউদ্দিন জাকারিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক ছিলেন।

জানা যায়, ২০১৩ সালে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ কোরআন শরিফ ও বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে কটূক্তি করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন জুনায়েদ। মৌখিকভাবেও কোরআন শরিফ ও বিশ্বনবীকে অবমাননা করে মন্তব্য করেন তিনি।

পরে ইসলাম অবমাননার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয় এবং বিচারের দাবিতে পাকিস্তান জুড়ে তীব্র আন্দোলন শুরু হয়। ২০১৪ সালে তার আইনজীবী বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী রশীদ রেহমানকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এরপর নিরাপত্তার স্বার্থে জুনায়েদকে কারাগারের সাধারণ কক্ষ থেকে নির্জন কক্ষে স্থানান্তর করা হয়।

এ ঘটনার আগে মামলার শুনানিকালে রশীদ রেহমানকে আদালত প্রাঙ্গণেই হত্যার হুমকি দিয়েছিল ধর্মীয় নেতা ও প্রসিকিউশনের আইনজীবীরা। এরপর থেকে এ মামলার বিচারকাজ উচ্চ সুরক্ষিত একটি জেলে সম্পাদন করা হয়। দীর্ঘ বিচার প্রক্রিয়া শেষে শনিবার ওই প্রভাষকের ফাঁসির রায় দেন আদালত।

রায় প্রকাশের পর জুনায়েদের পরিবার ও বর্তমান আইনজীবী এক বিবৃতিতে জানায়, এ মামলার আগের আইনজীবী রেহমানকে যারা গুলি করে হত্যা করেছিল তাদেরকে এখনো আইনের আওতায় আনতে না পারা অন্য ইঙ্গিত দেয়। এমন পরিস্থিতে কোন বিচারকই ন্যায় বিচারের ঝুঁকি নিতে পারেন না। তাই তারা এ রায়ের বিরুদ্ধে লাহোরের হাইকোর্টে আপিল আবেদন করবেন।