advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 10 মিনিট আগে

এবার একটু দেরিতে শুরু হয়েছে শীত। তবে তাতে কী! ঊনিশের শীত নাকি অতীতের অনেক রেকর্ড ভেঙে দেবে। এমনটাই খবর দিয়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের আবহাওয়া বিভাগ।

winter westbengal india

স্থানীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, তাপমাত্রার নিরিখে গত পাঁচ বছরের রেকর্ড ভেঙে দিল ২১ ডিসেম্বর৷ শনিবার কলকাতার সর্বনিম্ত তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রি৷ যদিও শুক্রবারের চেয়ে এদিন সামান্য বেড়েছে পারদ৷ শুক্রবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১১.৬ ডিগ্রি৷

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, বড় কোনও নিম্নচাপ না এলে বা এখনই আবহাওয়ার মানচিত্রে বড়সড় কোনও বদল না এলে অনেক রেকর্ডই তছনছ করে দেবে চলতি বছরের শীত।

এদিকে, রাজ্যে জাঁকিয়ে শীত পড়তেই হু হু করে বিক্রি বেড়েছে শীতবস্ত্র বিক্রেতাদের৷ বেজায় খুশি পাড়ায় পাড়ায় ঘুরে বেড়িয়ে শীতবস্ত্র বিক্রি করা কাশ্মীরিরাও৷ গত কয়েকদিনে তাদেরও বিক্রি বেড়েছে দ্বিগুণ৷ ভিড় বাড়ছে কলকাতার ওয়েলিংটনে ভুটিয়াদের বাজারেও। গরম কাপড় বিক্রেতারা বেজায় খুশি হাড় কাঁপানো শীতে।

এ বছর এমনিতেই শীত পড়তে বেশ খানিকটা সময় দেরি হয়েছে৷ ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়েও জাঁকিয়ে শীতের দেখা মেলেনি বাংলায়৷ শীত না পড়ায় বেজায় মন খারাপ ছিল শীতবস্ত্র বিক্রেতাদের৷ একই সঙ্গে মাথায় হাত পড়েছিল নলেন গুড়ের কারবারীদের৷ প্রতি বছরই নভেম্বরের মাঝামাঝি সময় থেকেই রাজ্যের বহু জায়গায় মোয়া ও নলেনগুড় বিক্রির দোকান গড়ে ওঠে৷ ফেব্রুয়ারি মাস শেষ করে তবে দোকান গোটান ব্যবসায়ীরা৷

কিন্তু এবার নভেম্বরের মাঝামাঝি সময় দোকান চালু করলেও ডিসেম্বরের মাঝামাঝি পর্যন্তও জাঁকিয়ে ঠাণ্ডা ছিল অধরাই৷ তাই বেজায় মন খারাপ ছিল মোয়া ব্যবসায়ীদেরও৷ তবে এখন পরিস্থিতির বদল ঘটেছে৷ হাড় কাঁপানো ঠাণ্ডায় জবুথবু রাজ্যবাসী৷ আগামী কয়েকদিনই ঝড়ো ব্যাটিং করবে শীত৷ এমনই পূর্বাভাস আলিপুর আবহাওয়া দফতরের৷

sheikh mujib 2020