advertisement
আপনি দেখছেন

দুই দিনের সফরে গতকাল সোমবার সস্ত্রীক ভারত এসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর এ দিনটিতে রক্তাক্ত হয়েছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) বিরোধীদের সঙ্গে এই আইনের সমর্থকদের সংঘর্ষে পুলিশসহ সাতজন নিহত হয়েছে।

delhi policeman killed in caa clashes

গত বছর সিএএ পাশ হওয়ায় পর থেকে এখন পর্যন্ত নয়াদিল্লিতে একদিনে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি ঘটনা এটি। গত ২৪ ঘন্টায় সংঘর্ষের ঘটনায় দিল্লি পুলিশের হেড কনস্টেবল রতন লাল সহ আরো ছয়জন সাধারণ নাগরিক নিহত হয়েছে।

দিল্লির উত্তারাঞ্চলে মৌজপুরে সবচেয়ে বেশি সংঘাতের ঘটনা ঘটেছে। সিএএ-বিরোধী ও সমর্থকদের কয়েকদফা সংঘর্ষে সেখানে অসংখ্য গাড়ি ও রাস্তা সংলগ্ন বাড়িতে আগুন দেখা বলে জানায় এনডিটিভি।

সিএএ-বিরোধী ও সমর্থকদের দফায় দফায় সংঘর্ষের মাঝে যানবাহন পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনাও ঘটেছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। বিক্ষোভ অব্যাহত থাকায় মঙ্গলবার দিল্লির উত্তরাঞ্চলে আরও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

তারা জানায়, মহম্মদ ফুরকান নামে আহত এক সাধারণ নাগরিক হাসপাতালে মারা গেছেন। সংঘর্ষে আহত হওয়ার পর তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখানেই তার মৃত্যু হয়। তিনি ছাড়া আরো পাঁচজন মারা গেছেন। তাদের কারো পরিচয় এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়েছে। ট্রাম্পের মতো সাম্রাজ্যবাদীকে ভারতে দেখতে চান না সেদেশের অনেকেই। এ কারণে তারা ‘গো-ব্যাক ট্রাম্প’ বলে স্লোগান দিয়েছেন, ট্রাম্পের কুশপুত্তলিকা পুড়িয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গের ১২টি বাম ও যুব সংগঠনের নেতাকর্মীরা সোমবার এ বিক্ষোভের আয়োজন করে। মিছিলটি কলকাতার মার্কিন তথ্যকেন্দ্রের দিকে রওনা দিলে পার্ক স্ট্রিটের কাছে পুলিশ আটকে দেয়। কলকাতার বাইরে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলাতেও বিক্ষোভ হয়েছে।

এ ছাড়া সারা ভারত শান্তি ও সংহতি সংস্থা শীর্ষক ব্যানারে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে দুই দিনব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়েছে। তারাও ধ্বনি তুলেছে ‘গো-ব্যাক ট্রাম্প’।

sheikh mujib 2020