advertisement
আপনি দেখছেন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সফরকে ‘কেন্দ্র করে’ ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (সিএএ) বিরুদ্ধে নতুন করে বিক্ষোভে উত্তাল দেশটির রাজধানী নয়াদিল্লি। গত দুই দিনের সহিংসতায় এখন পর্যন্ত অন্তত ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে সহিংসতা থেকে বাঁচতে ও নিজেদের হিন্দু প্রমাণ করতে বাড়ির বাইরে লাগানো হচ্ছে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির গেরুয়া পতাকা।

dellhi bgp flag house

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, দিল্লির ভজনপুরা, গৌতমপুরী এবং মৌজপুরের আশপাশের অঞ্চলের বাসিন্দারা বাড়ির বাইরের দেয়াল, প্রধান দরজা এমনকি বারান্দাতেও লাগিয়ে রাখছেন গেরুয়া পতাকা। হামলার শিকার যেন না হতে হয়, তাই নিজেদের হিন্দু প্রমাণ করতে ক্ষমতাশীন বিজেপির পতাকা নিজেদের বাড়িতে লাগাচ্ছেন বাসিন্দারা।

ভজনপুরার এক বাসিন্দা জানান, এলাকাটি হিন্দুপ্রধান। তারপরও কিছু মুসলমান এখানে বসবাস করেন। তাদের দোকানগুলো ইতোমধ্যে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। ভাঙচুর করা হয়েছে মুসলমানদের বাড়িঘর। তাই সহিংসতার হাত থেকে বাঁচার জন্য এই এলাকার প্রতিটি হিন্দু বাড়ি এবং দোকানের গায়ে গেরুয়া পতাকা লাগানো হয়েছে।

তিনি আরো জানান, মুসলমানদের পুড়ে যাওয়া দোকান ও বাড়িঘর থেকে জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যাচ্ছেন স্থানীয় হিন্দুরা।

এদিকে অভিযোগ উঠেছে, উদ্ভূত পরিস্থিতির মধ্যেই দিল্লির একটি মসজিদে আগুন দেয়াসহ মিনারে উঠে হনুমানের ছবি সম্বলিত একটি পতাকা উত্তোলন করেছে বিজেপি সমর্থকরা।

এ ঘটনার একটি ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা যায়, একদল উন্মত্ত জনতা জয় শ্রী রাম বলে স্লোগান দিচ্ছে। এ সময় তারা দিল্লির অশক নগর এলাকার একটি মসজিদে আগুন ধরিয়ে দেয়।

অপর এক ভিডিওতে দেখা যায়, কিছু লোক মসজিদের মিনারে উঠছে এবং সেখানে একটি পতাকা স্থাপনের চেষ্টা করছে। এ সময় তারা মসজিদের মাইক ভেঙে দেয় এবং সেখানে হনুমানের ছবি সম্বলিত একটি পতাকা উত্তোলন করে। পরে একটি ভারতীয় পতাকাও উত্তোলন করা হয়।