advertisement
আপনি দেখছেন

গত ২৪-২৫ ফেব্রুয়ারি ভারত সফর করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সে সময় তিনি দাবি করেন, ভারতে কোনো বিদেশি রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে তার জনসভাতেই সবচেয়ে বেশি মানুষের জমায়েত হয়েছে। তবে ট্রাম্পের এ দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন লোকসভার সদস্য ও কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী। 

bangabondhu speech at kolkata 1972

তিনি বলেন,  ট্রাম্পের সমাবেশ নয়, ভারতের ইতিহাসে একজন বিদেশি রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে সবচেয়ে বড় সমাবেশ করেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

দুই দিনের সফরের প্রথমদিন আহমেদাবাদে পৌঁছান মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সেখানে নবনির্মিত মোতেরা স্টেডিয়ামে এক লাখ লোকের উপস্থিতিতে তিনি ‘নমস্তে ট্রাম্প’ অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন। সফরের আগে ট্রাম্প বলেছিলেন, তাকে স্বাগত জানাতে ৭০ লক্ষ ভারতীয় জমায়েত করবেন। কিন্তু স্টেডিয়ামটিতে ১ লাখ মানুষ উপস্থিত ছিল।

অধীর রঞ্জন চৌধুরী এক টুইটে বলেন, ট্রাম্প দাবি করছেন তিনি সবচেয়ে বড় সমাবেশ করেছেন। এটি ভারতে আসা কোনো রাষ্ট্রপ্রধানের সবচেয়ে বড় সমাবেশ। আমি সবাইকে মনে করিয়ে দিতে চাই, ১৯৭২ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি কলকাতার ব্রিগেড প্যারেডে ১০ লাখ মানুষ জড়ো হয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বাগত জানাতে। সেটিই ছিল ভারতের ইতিহাসে বিদেশি কোনো রাষ্ট্রপ্রধানকে স্বাগত জানানোর সবচেয়ে বড় গণজমায়েত।

bangabondhu speech at kolkata 1972 06

টুইটে আরো বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সেই সমাবেশটি ছিল বঙ্গবন্ধুর প্রথম ভারত ও বিদেশ সফর। সমাবেশের পরের দিন বিভিন্ন পত্রিকায় উল্লেখ করা হয়, কলকাতার সব পথ যেন শেষ হচ্ছে প্যারেড গ্রাউন্ডে। বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শুধু নির্ধারিত ময়দানে সীমাবদ্ধ ছিল না। সারা কলকাতা ও হাওড়ার ১০টি পার্কে সেদিন ভাষণটি প্রচার করা হয়েছে।

সেদিন জনসভাটিকে ভারতের ইতিহাসে অন্যতম বৃহৎ জনসভা হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছিল। প্যারেড গ্রাউন্ডে আর মানুষের জায়গা হচ্ছিল না। যার ফলে আশপাশের পার্কগুলোতে অতিরিক্ত সাউন্ড সিস্টেম সরবরাহ করা হয়েছিল।

অথচ মাত্র ১ লাখ মানুষের জনসমাগমকে ট্রাম্প সবচেয়ে বড় সমাবেশ দাবি করছেন। সত্য কথা হলো ২৪ ফেব্রুয়ারি ট্রাম্পের ৩০ মিনিটের ভাষণ শেষ হওয়ার আগেই এক-তৃতীয়াংশের বেশি মানুষ চলে যান বলে দাবি করেন কংগ্রেসের এই নেতা।