advertisement
আপনি দেখছেন

নেশা শুধু খারাপ ফলই বয়ে আনে না, মাঝে মাঝে কপালও খুলে যেতে পারে নেশায় পড়লে! যেমনটা খুলে গেছে ভারতের মুর্শিদাবাদের খড়গ্রামের যুবক বিশাল মালের। তার নেশা ছিল লটারির টিকিট কেনা। পেশায় দিনমজুর, টানাটানির সংসার। এর মধ্যেই লটারির টিকিট কিনতে কিনতে ফতুর হওয়ার জোগাড়। কিন্তু কোনোভাবেই তিনি এই নেশা থেকে নিজেকে নিবৃত্ত করতে পারেননি।    

bishal india

অবশেষে ফল পেলেন গত রোববার রাতে। রাতারাতি কোটিপতি হয়ে গেলেন তিনি। ভারতের গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিনের খবরে বলা হয়েছে, গত শনিবার শ্বশুরবাড়িতে গিয়েছিলেন বিকাশ। রোববার সকালে ফেরার পথে একটি দোকান থেকে ৬০ টাকার লটারির টিকিট কেনেন তিনি। বিকেলে মোবাইলে রেজাল্ট মেলাতে গিয়েই চক্ষু চড়কগাছ। একে একে মিলে যায় টিকিটের সবকটি নম্বর। এরপর কাউকে কিছু না জানিয়ে সরাসরি থানায় হাজির হন তিনি।

পুলিশ কর্মকর্তাকে বিকাশ বলেন, ‘বড়বাবু আমাকে বাঁচান। আমি লটারিতে প্রথম পুরস্কার এক কোটি টাকা জিতেছি।’ গোটা বিষয়টি জানার পর তাকে আইনি সাহায্যের আশ্বাস দেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

কিন্তু দিন আনি দিন খাই- সংসারে এত টাকা দিয়ে কি করবেন বিকাশ? তিনি জানান, লটারি পাওয়ায় এই টাকা দিয়ে মা-বাবার চিকিৎসা করাবেন। ছেলে-মেয়েকে মানুষের মতো মানুষ করবেন।

এদিকে, পরিবারের লোকেরা এই অর্থলাভের খবর পেতেই আনন্দের জোয়ারে ভাসছেন। বিকাশের বাবা তমাল বাবু বলেন, অভাবের সংসারে এমন উপহার কোনোদিনও পাব ভাবিনি। এবার হয়তো কষ্ট লাঘব হবে, সেটাই আশা তার। সংসারের অভাব ঘুচবে ভেবেই মুখে হাসি ফুটেছে বিকাশের স্ত্রীরও।

sheikh mujib 2020