advertisement
আপনি দেখছেন

নির্ভয়া ধর্ষণকাণ্ডে জড়িতদের ফাঁসি ফের পিছিয়ে গেল। সোমবার দেশটির রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কাছে প্রাণভিক্ষার আর্জি জানিয়েছে পবন গুপ্ত নামের এক দণ্ডিত। সেই আবেদন এখন রাষ্ট্রপতির বিবেচনাধীন। এই অবস্থায় পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ফাঁসি স্থগিত রাখার নির্দেশ দিয়েছে দিল্লির একটি আদালত। আদালতের এমন নির্দেশকে তামাশা হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন নির্ভয়ার মা আশাদেবী। খবর এনডিটিভি, টাইমস অব ইন্ডিয়া।

ashadebi 02

তিনি বলেন, এ নিয়ে মোট তিনবার পেছানো হলো ধর্ষণে অভিযুক্ত চার আসামির ফাঁসি। আদালতের এমন ভূমিকায় আমি হতাশ। সাজা কার্যকরে দেরি হওয়ার বিষয়টি ভারতীয় বিচারব্যবস্থার অকার্যকারিতাকে প্রমাণ করে। আদালত এ বিচারকার্য নিয়ে তামাশা দেখাচ্ছে।

আশাদেবী বলেন, এ বিচারকার্যে আদালত অপরাধীদের সমর্থন করছে। গোটা বিশ্ব দেখছে কীভাবে ভারতে একটি ন্যায়বিচার বিলম্বিত করা হয়।

সোমবার মামলার বিচারপতি বলেন, ‘আসামির প্রাণভিক্ষার আর্জি নিয়ে যখন কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি, সেই অবস্থায় ফাঁসি কার্যকর করা যায় না। তাই ৩ মার্চ সকাল ৬টায় যে ফাঁসি হওয়ার কথা ছিল, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তা স্থগিত রাখা হলো।’

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে রাজধানী দিল্লিতে চলন্ত বাসে ২৩ বছরের নির্ভয়াকে ধর্ষণ ও খুনের অপরাধে সুপ্রিম কোর্ট মৃত্যুদণ্ড দেয় মুকেশ সিংহ, বিনয় শর্মা, অক্ষয় কুমার ও পবন গুপ্তকে।

রায় অনুযায়ী গত ২২ জানুয়ারি ফাঁসি হওয়ার কথা ছিল তাদের। কিন্তু দণ্ডিতরা একে একে প্রাণভিক্ষার আর্জি জানাতে শুরু করলে পরে তা পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি করা হয়। শেষমেষ গত ১৭ ফেব্রুয়ারি নতুন করে মৃত্যুদণ্ডের পরোয়ানা জারি করে দিল্লি হাইকোর্ট। তাতে ৩ মার্চ একসঙ্গে তাদের ফাঁসিতে ঝোলানোর নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু আবারো পিছিয়ে গেলো।

sheikh mujib 2020