advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ থেকে বাঁচতে ক্লোরোকুইন ফসফেট খেয়ে মারা গেছেন যুক্তরাষ্ট্রের এক ব্যক্তি। সংকটাপন্ন অবস্থায় আছেন তার স্ত্রীও। সম্প্রতি দেশটির অ্যারিজোনার ফিনিক্স শহরে ঘটে এই ঘটনা।

cloriqune tabletক্লোরোকুইন ফসফেট

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক সংবাদ সম্মেলনে গবেষকদের বলেছেন, করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় সম্ভাব্য ওষুধ হিসেবে ক্লোরোকুইন কাজ করতে পারে। চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে এ নিয়ে গবেষণা করা প্রয়োজন।

ট্রাম্পের এমন বক্তব্যে উৎসাহ পেয়ে ওই দম্পতি পানীয়ের সঙ্গে মিশিয়ে ক্লোরোকুইন ফসফেট খান এবং ২০ মিনিটের মধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে স্বামীর মৃত্যু হয়। স্ত্রীর অবস্থাও আশঙ্কাজনক। তাদের দুইজনের বয়সই ৬০ বছরের বেশি।

তবে ওই দম্পতির সেবন করা ক্লোরোকুইন ফসফেটটি ছিল পোষা মাছের পানির ট্যাংক পরিষ্কারের জন্য ব্যবহৃত রাসায়নিক। যা ম্যালেরিয়ার জন্য ব্যবহৃত ক্লোরোকুইন থেকে অনেকটা ভিন্ন।

ওই নারী সংবাদমাধ্যম এনবিসিকে জানান, টেলিভিশনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে করোনার চিকিৎসায় ক্লোরোকুইনের কার্যকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করতে শুনেছিলেন। এই ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়া নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন তারা। তাই প্রেসিডেন্টের বক্তব্যে উৎসাহ পেয়ে নিজেদের পোষা কই মাছের চিকিৎসার জন্য কেনা ক্লোরোকুইন খান তারা।

বিশ্বের ১৯৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ১ হাজার ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সংক্রমিত হয়েছেন আরো ৬৮ হাজার ৪৮৯ জন। এর মধ্যে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৩৯৪ জন।