advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতের পাঞ্জাবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা ২৩ জন সংক্রমিত হয়েছেন। গত ১৮ মার্চ তিনি মারা যান। তার বয়স ছিলো ৭০ বছর। সম্প্রতি তিনি তার দুই বন্ধুর সঙ্গে ইতালি ও জার্মানি ভ্রমণ করে এসেছেন। ফিরে এসে ১৫টি গ্রামে ঘুরেছেন। এসময় তারা কয়েকটি অনুষ্ঠানেও যোগদান করেছেন। যারা তার সংস্পর্শে এসেছেন তারা একের পর আক্রান্ত হওয়ার কারণে ওই ১৫টি গ্রাম লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। খবর এনডিটিভি।

punjab caseকরোনায় মৃত ব্যক্তির লাশ নিচ্ছেন হাসপাতালের কর্মীরা

এখন পর্যন্ত পাঞ্জাবে ৩৩ জনের দেহে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে ২৩ জনই ওই মৃত ব্যক্তির মাধ্যমে সংক্রমিত হয়েছেন। মারা যাওয়ার দুই সপ্তাহ আগে তিনি ইতালি ও জার্মানি সফর করে এসেছেন। তার সঙ্গে ছিলেন আরো দুইজন। কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম অমান্য করে তিনি অনেকের সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন।

৬ মার্চ ইউরোপ থেকে সরাসরি রাজধানী দিল্লিতে নামেন তিনি। তারপর গাড়িতে করে পাঞ্জাবে যান। এরপর ৮ থেকে ১০ মার্চ পর্যন্ত আনন্দপুর সাহিবে এক অনুষ্ঠানে যোগ দেন। তারপর নিজের বাড়িতে ফিরেন। এসময় তিনি গণপরিবহনের ব্যবহার করেছেন। আক্রান্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি তার বাড়ির আশেপাশে ১৫টি গ্রামে ঘুরেছেন।

punjab case02পাঞ্জাব রেলওয়ে স্টেশনে জীবাণুনাশক দেয়া হচ্ছে

তার সংস্পর্শে আশা ব্যক্তিরা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর স্থানীয় প্রশাসন ওই ১৫টি গ্রাম লকডাউন করার ঘোষণা দিয়েছে। সেইসঙ্গে যারা তার সংস্পর্শে এসেছেন তাদের সবাইকে আইসোলেশনে রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

ভারতে এখন পর্যন্ত ৭০০ জনের শরীরে এ ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। মৃত্যু হয়েছে ১৭ জনের।